Royalbangla
ডাঃ গুলজার হোসেন ,বিশেষজ্ঞ হেমাটোলজিস্ট
ডাঃ গুলজার হোসেন ,বিশেষজ্ঞ হেমাটোলজিস্ট

রক্তের অসুখ পলিসাইথেমিয়া

টিপস

পলিসাইথেমিয়া কিঃ

পলিসাইথেমিয়া রক্তের একটি বিশেষ অসুখ যা এনিমিয়ার ঠিক উল্টো।

এনিমিয়ায় হিমোগ্লোবিন কমে যায়। পলিসাইথেমিয়ায় যায় বেড়ে৷

ছেলেদের ক্ষেত্রে যদি হিমোগ্লোবিন ১৭.৫ গ্রাম/ডেসিলিটার এবং মেয়েদের ক্ষেত্রে ১৫.৫ গ্রাম/ ডেসিলিটার এর বেশি হয় তাহলে সেটাকে পলিসাইথেমিয়া বলে প্রাথমিকভাবে গণ্য করা হবে।

পলিসাইথেমিয়ার কারণ ও ধরণঃ

দুরকম কারণে পলিসাইথেমিয়া হতে পারে৷ অস্থি মজ্জা বা স্টেম সেলের সমস্যা জনিত কারণে পলিসাইথেমিয়া হতে পারে। এটাকে বলে প্রাইমারি পলিসাইথেমিয়া বা পলিসাইথেমিয়া রুব্রা ভেরা।

অপরটি হলো সেকেন্ডারি পলিসাইথেমিয়া। যদি শরীরের অন্য কোন অসুখের প্রতিক্রিয়ায় পলিসাইথেমিয়া দেখা দেয় তবে তাকে বলে সেকেন্ডারি পলিসাইথেমিয়া। বিভিন্ন ধরণের টিউমার, কিডনির অসুখ, জন্মগত হার্টের অসুখ, এজমা বা সিওপিডি জনিত ফুসফুসের অসুখ ইত্যাদি কারণে রক্তের উৎপাদক হরমোন ইরাইথ্রোপোয়েটিন বেড়ে যেতে পারে। সেই ইরাইথ্রোপোয়েটিনের প্রভাবে রক্তের লোহিত কণিকা ও হিমোগ্লোবিনের পরিমান বেড়ে গেলে পলিসাইথেমিয়া হতে পারে।

আরেকধরণের পলিসাইথেমিয়া আছে৷ সেটা হোলো রিলেটিভ পলিসাইথেমিয়া৷ অর্থাৎ আসলে কোষের সংখ্যা বাড়েনি কিন্তু রক্তরসের অনুপাতে রক্তকোষের সংখ্যা বেড়ে গেছে৷ অতিরক্তি ধূমপান, মদ্যপান, মূত্রবর্ধক ওষুধ ইত্যাদি কারণে রক্তরস কমে গিয়ে রক্তকোষের আনুপাতিক বৃদ্ধি হতে পারে।

পলিসাইথেমিয়া হলে কি হয়ঃ

পলিসাইথেমিয়ায় রক্তকোষ বেড়ে গিয়ে রক্তের ঘনত্ব বেড়ে যায়৷ ফলে মাথা ধরা, শ্বাসকষ্ট, চোখে কম দেখা, চুলকানি ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দেয়৷ গরম পানিতে গোসল করলে গা বেশি করে চুলকায়।

পলিসাইথেমিয়ায় রোগীর চোখ মুখ লাল হয়ে যায়। তাই এর নাম রুব্রা ভেরা। অবশ্য এশীয় মহাদেশীয় বাদামী ত্বকের রোগীর ক্ষেত্রে লাল হয়ে যায়ের বদলে বলতে হবে কালো হয়ে যায়৷

এছাড়াও প্লীহা বড় হয়ে যায়, ব্লাড প্রেসার বেড়ে যায়, পেপটিক আলসার, জয়েন্টে ব্যথা ইত্যাদিও দেখা দিয়ে থাকে।

রক্তের ঘনত্ব বাড়তে থাকলে বিপদও বাড়তে থাকে। রক্ত ঘন হয়ে আস্তে আস্তে রক্তের প্রবাহ ধীর হয়ে যায়। স্ট্রোক, হার্ট এটাক ইত্যাদির সম্ভাবনা বেড়ে যায়৷

রোগ নির্ণয়ে কি কি পরীক্ষা করা হয়ঃ

রক্তের ফিল্ম (সিবিসি) পরীক্ষাতেই প্রাথমিকভাবে রোগটি ধরা পড়ে। হিমোগ্লোবিন ও পিসিভি বা হিমাটোক্রিটের মাত্রা দেখে রোগটির প্রাথমিক নিরূপন করা হয়ে থাকে। এরপরের ধাপে দেখতে হয়ে সেকেন্ডারি কোন কারণে এটি হয়েছে কিনা। রোগীর বিস্তারিত ইতিহাস সেক্ষেত্রে খুব গুরুত্বপূর্ণ। সাথে টিউমার মার্কার পরীক্ষা, বুকের এক্সরে, আল্ট্রা সনোগ্রাম, হার্টের ইকোকার্ডিওগ্রাম, ইসিজি ইত্যাদি পরীক্ষা করা হয়। ইরাইথ্রোপোয়েটিনের মাত্রা পরীক্ষা এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ যদিও আমাদের দেশে এর সুযোগ খুব কম। প্রাইমারি কারণ বা মজ্জার সমস্যাজনিত কারণে হয়েছে বলে মনে হলে বোনম্যারো পরীক্ষা ও বিশেষ জিনের মিউটেশন দেখার জন্য সাইটোজেনেটিক পরীক্ষা করা হয়।

চিকিৎসা কিঃ

এই রোগের চিকিৎসা তুলনামূলক সহজ৷ ভেনিসেকশন এর অন্যতম প্রধান চিকিৎসা। ভেনিসেকশন মানে হলো শিরায় সুঁই ফুটিয়ে রক্ত টেনে নিয়ে ফেলে দেওয়া। যেভাবে ব্লাড ডোনারদের থেকে রক্ত নেওয়া হয় সেভাবেই৷ তবে এই রক্ত কাউকে দান করা যাবেনা। রোগের মাত্রা ভেদে চিকিৎসকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সপ্তাহে একবার বা একাধিকবার ভেনিসেকশন করা যেতে পারে।

ওষুধের মধ্যে আছে হাইড্রোক্সিইউরিয়া, বুসালফেন। মিউটেসন স্টাডি করে পজিটিভ পাওয়া গেলে জ্যাকাফি নামক এক প্রকার ওষুধ দেওয়া যায়৷ তবে আমাদের দেশে এর ব্যাবহার খুবই সীমিত। কারণ এর দাম সাধারণের ধরা ছোঁয়ার বাইরে৷

একটু বেশি বয়সী যারা তাদের ক্ষেত্রে রেডিও এক্টিভ ফসফরাস ব্যাবহার করা যেতে পারে। বিভিন্ন কারণে এটিরও ব্যাবহার সীমিত।

রোগের পরিণতিঃ

প্রাইমারি পলিসাইথেমিয়ার রোগী নিয়মমাফিক চিকিৎসা নিলে ও নিয়মিত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধায়নে থাকলে অনেকদিন পর্যন্ত ভাল থাকতে পারে।

পাঁচ শতাংশ রোগী পরবর্তীতে ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারে৷ ২০-৩০ শতাংশ রোগী মাইলোফাইয়াব্রোসিস নামক এক প্রকার মজ্জার জটিল অসুখে আক্রান্ত হতে পারে।

সেকেন্ডারি পলিসাইথেমিয়ার ক্ষেত্রে মূল যে রোগ সেটির চিকিৎসা করলে পলিসাইথেমিয়াও ভাল হয়ে যায়৷

এই লেখকের সব লেখা পড়ুন নিচের লিংক থেকে।
www.royalbangla.com/gulzarhematologist

লেখক
ডাঃ গুলজার হোসেন
বিশেষজ্ঞ হেমাটোলজিস্ট
জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউট ও হাসপাতাল
চেম্বারঃ
বি আর বি হাসপাতাল পান্থপথ, ঢাকা।
লেখকের সাথে যোগাযোগ করতে নিচের ফেসবুক পেইজে ক্লিক করুন
www.facebook.com/gulzarhematologist

  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে royal_bangla@yahoo.com
পরবর্তী পোস্ট

বাচ্চাদের ফল ও সবজি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলবেন কিভাবে?


.
Iron Problem Solution

আপনি কি নিজের অজান্তে আয়রন এর অভাবে ভুগছেন ?


পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী
.
What is Thalassemia?

থ‌্যালাসেমিয়া কি ? কেন হয় ?


ডাঃ সাঈদ সুজন
.
When,Why and How to Give Blood?

রক্ত কখন কেন কিভাবে দিবেন?


ডাঃ সাঈদ সুজন
.
roktodan

রক্তদানের ১০টি উপকারিতা যা জানলে আপনি অবাক হবেন


ডা ফাতেমা জোহরা
.
রক্তস্বল্পতার কারণ

রক্তশূণ্যতা কী? কারণ, লক্ষণ ও প্রতিকার।


ডাঃ গুলজার হোসেন
.
hBlood Cancer

প্রসংগ:ব্লাড ক্যান্সার-প্রাথমিক ধারনা ও করণীয়


ডাঃ গুলজার হোসেন
.
রক্তদান

রক্তদান ও রক্তপরিসঞ্চালন নিয়ে কিছু কথা


ডাঃ গুলজার হোসেন
.
ডেংগু

ডেংগি ও প্লেইটলেট(ডেংগু নিয়ে কিছু ভ্রান্ত আতঙ্ক)


ডাঃ গুলজার হোসেন
.
থ্যালাসেমিয়া

আসুন থ্যালাসেমিয়াকে জানি


ডাঃ গুলজার হোসেন
.
রক্তদান

বাবার জন্য সন্তানের রক্ত কতটুকু নিরাপদ?


ডাঃ গুলজার হোসেন,বিশেষজ্ঞ হেমাটোলজিস্ট জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউট ও হাসপাতাল

ওভারিয়ান সিস্ট: লক্ষণ, চিকিৎসা ও পরামর্শ

ডাঃ হাসনা হোসেন আখী,এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য),এমএস (অবস এন্ড গাইনী)
ওভারিয়ান সিস্ট
মহিলাদের প্রজননতন্ত্রের অন্যতম হল ডিম্বাশয় যা ডিম্বাণু (ঋতুস্রাবের সময়ে ডিম্বানু বিমুক্ত করে) উৎপাদনে সাহায্য করে। ডিম্বাশয়ের মধ্যে ছোট ছোট গ্রন্থি থাকে যেগুলি ঋতুস্রাবকালীন সময়ে উৎপন্ন হয় এবং ডিম্বানু মুক্ত করে শরীরের সঙ্গে মিশে যায়। ......
বিস্তারিত

দাঁত ব্রাশের সময় যে ৭টি ভুল করি আমরা

ডা: এস.এম.ছাদিক,বি ডি এস (ডি ইউ),এম পি এইচ (অন কোর্স)
Brushing
শুধুমাত্র ক্যাভেটিস এর বিরুদ্ধে লড়াই করাই দাঁত ব্রাশ করার মুখ্য উদ্যেশ্য নয়। বরং মুখের দুর্গন্ধ রোধ, দাঁতের হলদে ভাব দূর করে প্রাণবন্ত হাসি, ও দাঁতের সুস্থতা রক্ষাও এর উদ্দ্যেশ্য।........
বিস্তারিত

ছোটদের সহজে বাংলা বানান শেখাবেন যেভাবে--

রয়াল বাংলা ডেস্ক
বাংলা বানান
বাচ্চাদের বাংলা বানান শেখানো কতটা কঠিন ও চ্যালেঞ্জিং সেটা যিনি বানান শিখিয়েছেন তিনিই ভাল জানেন। বাংলাদেশে প্রাথমিক স্কুলে অনেক বাচ্চােই ভাল করে বানান না শিখেই ক্লাস প্রমোশন পায়। একটু বড় হলেই এই বাচ্চাগুলো প্রতিষ্ঠানের বোঝায় পরিণত হয়। ........
বিস্তারিত

গর্ভাধারণের আগে এবং গর্ভাবস্থায় ফলিক অ্যাসিড কেন খাবেন।

ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা)
ফলিক এসিড
ফলিক অ্যাসিড স্পাইনা বাইফিডা সহ নিউরাল টিউব ডিফেক্টস নামে পরিচিত জন্মগত ত্রুটি প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।........
বিস্তারিত
Health Benefits of liver

মুরগীর কলিজা কি সত্যিই বিষাক্ত?


পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন।
ঘুম

অনিদ্রার ব্যবস্থাপনা


জিয়ানুর কবির
প্রস্টেট সমস্যা

পুরুষের প্রস্টেট সমস্যা


ডাঃ মোহাম্মদ ইব্রাহিম আলী,এমবিবিএস,বিসিএস,এমএস(ইউরোলজী)
ডেংগু

ডেংগি ও প্লেইটলেট(ডেংগু নিয়ে কিছু ভ্রান্ত আতঙ্ক)


ডাঃ গুলজার হোসেন
ডায়েট

ওজন কমানোর ডায়েট


ডাঃ গুলজার হোসেন
ব্রেস্ট ক্যান্সার

ব্রেস্ট এ সিস্ট কি বিপদজনক?


ডাঃ লায়লা শিরিন

হাপানি
1
ব্ল্যাক ফাঙ্গাস কি
2
Bleeding in Anus
3