Royalbangla
নুসরাত জাহান, ডায়েট কন্সালটেন্ট
নুসরাত জাহান, ডায়েট কন্সালটেন্ট

জেনে নিন আপনি যে অভ্যাসগুলোর কারণে কিডনি রোগে আক্রান্ত হতে পারেন

স্বাস্থ্য টিপস

কথায় আছে প্রতিষেধকের চেয়ে প্রতিরোধই উত্তম। বিশেষ করে কিডনি রোগ যদি প্রাথমিকভাবে ধরা পড়ে তাহলে খাদ্যাভ্যাস ও জীবনধারন মেনে চললে কিডনিকে স্বাভাবিক অবস্থায় নিয়ে আসা সম্ভব। এবিষয়ে একজন ডায়েটিশিয়ানের পরামর্শ কিডনির সুস্থতায় দারুন ভুমিকা পালন করতে পারে। কিডনি ফাউন্ডেশনের তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশে প্রায় ২ কোটি মানুষ কিডনি রোগে ভুগছেন। এর মধ্যে ৪০ হাজারেরও বেশি মানুষের কিডনি প্রতিবছরই অকেজো হয়ে যাচ্ছে। আরও খারাপ খবর কিডনী রোগ যদি জটিল আকার ধারণ করে তাহলে এর চিকিৎসা ব্যয় অনেক বেশি।

যে অভ্যাসগুলো কিডনি রোগের জন্য দায়ী:

প্রস্রাব ধরে রাখা

কিডনি বিকল হওয়ার কারণগুলোর অন্যতম হলো প্রস্রাব ধরে রাখা। প্রস্রাব ধরে রাখলে তা কিডনির উপর চাপ সৃষ্টি করে। দীর্ঘমেয়াদী প্রস্রাব ধরে রাখার অভ্যাস কিডনিকে ক্ষতিগ্রস্থ করে।

পর্যাপ্ত পানি পান না করা:

দৈনিক যতটুকু পানি পান করা দরকার ততটুকু না করলে কিডনি ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে। কিডনির প্রধান কাজ শরীর থেকে বর্জ্য বের করা। কিন্তু পর্যাপ্ত পানি না করলে রক্তে দূষিত পদার্থ জমা হতে থাকে কিডনি যা ছাকতে পারে না।

ডায়বেটিস কিডনি রোগের অন্যতম কারণ:

পর্যাপ্ত পানি পান না করলে,,,গবেষণায় দেখা গেছে,, কিডনি বিকল হওয়ার অন্যতম কারণ ডায়বেটিস। যাদের ডায়বেটিস অনেক বেশি তারা প্রাথমিক অবস্থায় কিডনি বিকল হওয়ার বিষয়টি টের পান না। ডায়বেটিস রোগীরা খেয়াল করুন শ্বাসকষ্ট হচ্ছে কিনা , বা ঘন ঘন পেশাব , রক্তশূন্যতা,অরুচি,মুখ ও শরীর ফুলে যাওয়া,শরীরে পানি জমা ও স্মৃতিশক্তির মত কোন সমস্যা।

উচ্চ রক্তচাপ:

উচ্চ রক্তচাপ হতে পারে কিডনি রোগের আরেকটি কারণ। উচ্চ রক্তচাপ হৃদপিন্ড ও দেহের রক্তনালীর ক্ষতি করে । এতে কিডনির রক্তনালী ক্ষতিগ্রস্থ হয়। যাদের উচ্চ রক্তচাপ আছে তাদের কিডনি বিকল হতে ১০ থেকে ১৫ বছর লাগে। তবে অনিয়ন্ত্রিত রক্তচাপ খুব বেশি থাকলে কয়েক সপ্তাহ বা মাসের মধ্যেও কিডনি বিকল হতে পারে।

অতিরিক্ত শারীরিক শ্রম:

আপনি যখন অতিরিক্ত শারিরীক পরিশ্রম করেন তখন আপনার পেশি ভেঙে যায়। ঐ ভেঙে যাওয়া পেশিগুলো রক্তের সাথে কিডনিতে প্রবাহিত হয়। কিডনি ঐ প্রবাহকে ছাকতে পারে না। ফলে কিডনির ক্ষতি হয়।

কিডনি নষ্ট হওয়ার কারণ

বেশি বেশি প্রোটিন খাওয়া:

অতিরিক্ত প্রোটিন জাতীয় খাবার কিডনির ক্ষতির কারণ হতে পারে। খাদ্য তালিকায় অতিরিক্ত প্রোটিন কিডনির ক্ষতি করে ।

বেশি বেশি লবণ খাওয়া:

অতিরিক্ত লবণ বা সোডিয়াম কিডনি রোগের আরেকটি কারণ । আমরা যখন অতিরিক্ত লবণ খাই এই সোডিয়াম প্রক্রিয়াজাত করা নিয়ে কিডনিকে অনেক বেশি ব্যস্ত থাকতে হয় এতে কিডনির উপর প্রবল চাপ পরে। একজন মানুষের দৈনিক ৫.৮ গ্রামের বেশি লবণ খাওয়া উচিত নয়।

কোমল পানীয়তে ক্ষতি:

কোমল পানীয় আমাদের দৈনন্দিন খাদ্যাভ্যাসের অংশ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু এসব পানীয়ের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ক্যাফেইন মেশানো থাকে। অতিরিক্ত ক্যাফেইন শরীরে রক্তচাপ বাড়িয়ে দিতে পারে। অতিরিক্ত রক্তচাপ কিডনির উপরও চাপ প্রয়োগ করে এবং কিডনি ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

ব্যথানাশক ঔষধ খাওয়া:

সামান্য কোন ব্যথায় যারা ব্যথানাশক ঔষধ খাচ্ছেন তাদের জন্য খারাপ খবর। কিডনিসহ নানা অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের জন্য ব্যথানাশক ঔষধ ক্ষতিকর। গবেষণায় দেখা গেছে,দীঘদিন ধরে ব্যথানাশক ঔষধের উপর নির্ভরতা কিডনির কার্যক্ষমতা হ্রাস করে।

ধূমপানে আসক্তি:

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের মতে, ধুমপান কিডনিসহ শরীরের সব অঙ্গের জন্য ক্ষতিকর। এছাড়া বিভিন্ন গবেষণাতে ধূমপানের সাথে কিডনির ক্ষতির সম্পর্ক দেখানো হয়েছে।

কম ঘুমানো:

কম ঘুম কিডনি রোগের আরেকটি কারণ। রাতের ঘুম আপনার কিডনি ভাল রাখার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এক গবেষণায় দেখা যায়, দীঘদিন একটু পরপর ঘুম ভাঙার সমস্যাও কিডনি রোগের কারণ। রাতে কিডনির টিস্যু তৈরি হয়, তাই রাতের ঘুমের বিঘ্ন ঘটলে তা কিডনির ক্ষতির কারণ হতে পারে ।

চিকিৎসায় দেরি করা:

কারো যদি ডায়বেটিস,উচ্চ রক্তচাপ,স্থুলতা অথবা পরিবারের কেউ যদি কিডনি রোগে আক্রান্ত থাকার ইতিহাস থাকে তাহলে তার নিয়মিতই কিডনি পরীক্ষার প্রয়োজন। কারণ কিডনি ক্ষতিগ্রস্থ হলে এটার চিকিৎসায় দেরী করলে ক্ষতির পরিমাণ আরো বেড়ে যেতে পারে।

ধন্যবাদ
নুসরাত জাহান
Nutrition and Diet Consultant
ইবনে সিনা ডায়াগনোস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টার, কেরাণীগন্জ
মোবাইল: ০১৭৩০-৫৯৯১৭১-২
সালাউদ্দিন স্পেশালাইজড হসপিটাল,ওয়ারী
মোবাইল:০১৭১৮-০৪৬০৯৮
অনলাইন কাউন্সিলিং ০১৮৭-২৪৩৪৪৮১
প্রয়োজনে ক্লিক করুন নিচের ফেসবুক পেজে
www.facebook.com/trust.a.dietitian

  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে royal_bangla@yahoo.com
পরবর্তী পোস্ট

মানসিক সেবাপ্রদানকারী কি সঠিক ডিগ্রীধারী??


ওটস কেন খাবেন? এর উপকারিতাই বা কি ?

নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী
এসিডিটি ও ওটস
সবাই তাদের পছন্দ মতো ওটসের দেশী অথবা বিদেশী ডিশ তৈরী করে থাকেন যা তাঁদের স্বাদের যোগানের সাথে সাথে স্বাস্থ্যেও পুষ্টি বজায় রাখে। আজকাল বাজারে অনেক ধরণের ওটস পাওয়া যায় তার মধ্যে প্যাকেট ওটস, রেডি টু ইট ওটস, ওটসের আটা ইত্যাদির চাহিদা সবচেয়ে বেশি।..
বিস্তারিত

ডিপ্রেশনের সাইকোলজিক্যাল কারণ

জিয়ানুর কবির
depression in Bangla
ডিপ্রেশনের কগনিটিভ থিউরি অনুযায়ী, ডিপ্রেশনের জন্য দায়ী কগনিটিভ ডিসটরশন বা চিন্তার বিচ্যুতি। আমরেকিান সাইকিয়াটিষ্ট Aron T Beck কগনিটিভ ডিসটরশন নিয়ে প্রথম কাজ করেন। কগনিটিভ ডিসটরশনের কারনে ব্যাক্তি ব্যাস্তবতাকে ভূলভাবে বুঝতে পারেন।...
বিস্তারিত

হাত ও পায়ের ত্বকের উজ্বলতা বৃদ্ধি

Royal Bangla Desk
হাত ও পায়ের কালো দাগ
আমাদের শরীর পোষাকে ঢাকা থাকলেও হাত ও পা সবসময় উন্মুক্ত থাকে। সূর্যয়ের তাপ ও এর অতিবেগুনী রশ্ম ইত্যাদি আরো অনেক কিছুর সংস্পর্শে এসে তা হাত ও পায়ের ত্বক বেশি মুষড়ে পড়ে। এ স্থান গুলোর স্বাভাবিক সৌন্দর্য ধরে রাখতে তাই প্রয়োজন বাড়তি যত্ন।
বিস্তারিত

মুখের ত্বকে ও শরীরের ত্বকের লোমকূপে জমে থাকা ময়লা কিভাবে দূর করবেন?

Royal Bangla Desk
ত্বকে জমে থাকা ময়লা
তৈলাক্ততা, শুষ্ক ও মৃত কোষের স্তরে অথবা ধুলা ময়লার স্তরে ঢেকে যেতে পারে ত্বক ও এর লোমকূপ গুলো। এ কারণে ছিদ্র গুলো ঢেকে থাকায় রক্তের অতিরিক্ত শ্বেতকণিকার প্রবাহের কারণে চামড়ায় জ্বালাপোড়া হতে পারে। ব্রণ, ফুস্কুড়ি বা নান ধরনের চর্ম রোগ থেকে রক্ষা পেতে এ লোমকূপ বন্ধ হওয়া বা ত্বকে ময়লা জমা রোধ করতে হবে।
বিস্তারিত
Usefulness of Avakado

আভোকাডো এর ১০ টি উপকারিতা ?


Nutritionist Jayoti
food-to-avoid-in-pregnancy

প্রেগন্যন্সিতে বর্জনীয় খাবার অর্থাৎ যে খাবার গুলো গর্ভস্থ শিশুর জন্য বর্জন করতে হবে


নিউট্রিশনিস্ট সাদিয়া স্মৃতি
কুমড়া

মিষ্টি কুমড়ার পুষ্টিগুণ


Nutritionist Iqbal Hossain
বন্ধ‌্যাত্ব

হরমোন ও বন্ধ্যাত্ব!


ডা. মো মাজহারুল হক তানিম
তেল

কোন তেল খাবেন?


Nutritionist Jayoti
দুধ

নবজাতক ও মায়েদের সুস্থতার জন‌্য বুকের দুধ খাওয়ানোর গুরুত্ব


পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা

কেন যাবেন একজন পুষ্টিবিদের কাছে?
1
চা-কফি পানের ক্ষতিকর দিকগুলো কি?
2
ডায়েটে কি দাওয়াত খাওয়া যাবে?
3