Royalbangla
রয়াল বাংলা ডেস্ক
রয়াল বাংলা ডেস্ক

কড়া বা ত্বকের জামুড়া সমস‌্যা লাঘবের উপায়

কড়া

ত্বকের কোন নির্দিষ্ট স্থানে বার বার আঘাত লাগা বা চাপ পড়ার কারণে স্বাভাবিক কারণেই ত্বকের উপর পুরু মোটা আস্তরনের সৃষ্টি হয়, ঐ স্থানকে সাধারণত জামুড়া বলা হয়ে থাকে। পায়ে, আঙ্গুলের ডগায় বা হাতের তালুতে সাধারণত ত্বকের এ সমস্যা দেখা দেয়। সবথেকে বেশি তৈরি হয় পায়ে এবং ঐ স্থান উঁচু হয়ে হাঁটা চলায় বাধার প্রতিবন্ধকতার তৈরি করে, এছাড়া চাপ পড়লে ব্যাথা অনুভূত হয়।

কড়া বা জামুড়ার কারণ সমুহ


* পায়ের নির্দিষ্ট স্থানে ক্রমাগত আঘাত লাগা যেমন শক্ত বা অসামঞ্জস্য চামড়ার জুতা, উঁচু হীল যুক্ত জুতা ইত্যাদি।
* ত্বকের অধিক শুস্কতা।
* হাত দিয়ে ভারী যন্ত্রপাতির কাজ দীর্ঘদিন ধরে করতে থাকলে হাতের তালুতে বা আঙ্গুলে এ সমস্যা দেখা দিতে পারে।
* পায়ের হঠাত আঘাত বা হাড়ের খতর কারণে হতে পারে ।
* ডায়েবেটিস রোগী যাদের পায়ে রক্ত সঞ্চালনের সমস্যা আছে তাদের হতে পারে।

লক্ষণ সমূহ


* শক্ত ও উঁচু চামড়ার স্তর
* চাপ পড়লে ব্যাথা অনুভূত হওয়া
* ধীরে ধীরে কালো রঙ ধারন করতে পারে
খুব সাধারণ সমস্যার অতি সাধারণ কিছু সমাধান-
  1. ১। আরামদায়ক জুতা ব্যবহার করাঃ
    ক্রমাগত হাঁটাহাঁটি তে ঘর্ষণের কারণে ক্ষতের সৃষ্টি হতে পারে যা থেকে ধীরে ধীরে জামুড়ার জন্ম হয়।
    * শক্ত জুতা ব্যবহার করা একেবারেই উচিৎ নয়।
    * পায়ে পুরোপুরি ফিট করে এমন জুতা ব্যবহার করা আবশ্যক সব সময়।
    * ৩/৪ জোড়া জুতা নিয়মিত বদল করে পরা উচিৎ যাতে একই জুতার কারণে পায়ের নির্দিস্ট স্থানেই সব সময় চাপ না পড়ে।
  2. ২। ময়েশ্চারাইজার ব্যবহারঃ
    ত্বকের শুস্কতা জামুড়া হওয়ার অন্যতম কারণ।
    * রেড়ীর তেল অথবা নারিকেল তেল ঘুমানোর পূর্বে পায়ে ও হাতে ব্যবহার করলে তা ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখে।
    * রেড়ীর তেল পায়ের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে যা চামড়ার স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সহায়ক।
  3. ৩। গরম পানির ব্যবহারঃ
    সব থেকে প্রাথমিক এবং সহজ সমাধান হলো গরম পানি।
    * পারে হালকা গরম পানি নিতে হবে।
    * আক্রান্ত পা অথবা হাত পানিতে ২০ মিনিট রেখে দিতে হবে।
    * ঐ স্থানের শক্ত চামড়া একেবারে নরম হয়ে আসলে তোয়ালে দিয়ে মুছে নিতে হবে পানি।
    * হাত দিয়ে খুব আলতো করে ধীরে ধীরে ঘসা দিয়ে চামড়ার উপরিস্তর তুলে ফেলার চেষ্টা করতে হবে।
  4. ৪। লেবুঃ
    ত্বকের যত্নে সব সময়ই লেবু দারুণ কার্যকরী একটি ফল।
    * রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে, এ টুকরো লেবু ১ ইঞ্চি লম্বা ও চওড়ায় পায়ের পাতার মাপ অনুযায়ী কেটে নিতে হবে।
    * আক্রান্ত স্থানে লেবু রেখে সুতি কাপড় দিয়ে বেঁধে রাখতে হবে অথবা মোজা ও ব্যবহার করা যেতে পারে সারা রাত।
    * এ পদ্ধতি কিছুদিন ব্যবহার করলে ধীরে ধীরে শক্ত চামড়া বিলুপ্ত হয়।
  5. ৫। পেয়াজঃ
    ঝাঁঝালো এ মসলা জামুড়া সমস্যা সমাধানে উপকারী ভীষণ।
    * একটি পাত্রে ভিনেগার নিয়ে তার মধ্যে কয়েক টুকরো পেঁয়াজ নিতে হবে।
    * পুরো দিন পেঁয়াজ এভাবে ভিজিয়ে রেখে রাতে ঘুমানোর আগে আক্রান্ত স্থানে বেঁধে দিতে হবে।
    * কয়েকদিন পর জামুড়া যথেষ্ট নরম হয়ে যায় এবং হাতের সামান্য ঘসাতেই আলগা হয়ে পড়ে।
  6. ৬। পাউরুটিঃ
    পাউরুটির মধ্যে থাকা ব্যক্টেরিয়া ও ময়দার গুনাগুন ত্বকের স্বাস্থ্যের অনুকুলে।
    * পাউরুটির টুকরো ভিনেগারে ভিজিয়ে রাখতে হবে সারাদিন।
    * রাতে ঘুমানোর পুর্বে শক্ত হয়ে যাওয়া চামড়ার স্থানে লাগিয়ে নিতে হবে।
    * সকালে উষ্ণ গরম পানিতে ঐ স্থান ধুয়ে ফেলতে হবে।
  7. ৭। খাবার সোডাঃ
    * একটি পাত্রে হালকা গরম পানি নিতে তাতে ৩/৪ চামচ খাবার সোডা মিশিয়ে নিতে হবে। এর মধ্যে ১০ মিনিট পা ডূবিয়ে রাখলে জামুড়া স্থান নরম হয়। কিছুদিন এ পদ্ধতি ব্যবহার করলে হাতের সামান্য ঘসাতেই তা উঠে আস্তে শুরু করে স্তরে স্তরে।
    * বাটিতে ১ চামচ লেবুর রস, ২ চামচ জলপাই মিশাতে হবে। ২ চামচ খাবার সোডা নিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি হবে। জামুড়ার উপরে ও আশেপাশের ত্বকে ভালোভাবে লেপে দিতে হবে। প্রতিদিন একবার করলে কিছু দিনেই সুপকার পাওয়া যায়।
  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে royal_bangla@yahoo.com
পরবর্তী পোস্ট

জেনে নিন থাইরয়েড সমস্যায় ওষুধ খাওয়ার সঠিক নিয়ম


আক্কেল দাঁত কখন এবং কেন ফেলতে হয়?

ডা: এস.এম.ছাদিক,ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী
সাধারণত আক্কেল দাঁত সম্পূর্ণভাবে উঠার সময় হলো ১৭-২৫ বছর বয়স । কিন্তু ১৭-২০ বছর বয়সের মধ্যেই বুঝা যায় আক্কেল দাঁত সঠিকভাবে উঠবে কি না।....
বিস্তারিত

শালগম এর উপকারীতা

পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন,পুষ্টি কর্মকর্তা
শালগম অত্যন্ত পুষ্টিকর খাদ্য হিসেবে সুপরিচিত। ভিটামিন এ, সি এবং ভিটামিন কে তে ভরপুর থাকে শালগম। শালগমের সবচাইতে ভালো দিক হচ্ছে এদের ক্যালরি খুব কম থাকে। নিয়মিত শালগম খাওয়ার কিছু কারণ সম্পর্কে জেনে নিই চলুন।........
বিস্তারিত

সাইনাস আর সাইনুসাইটিস, আসুন সহজে বুঝে নিই.

ডা: এস.এম.ছাদিক,ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী
স্বাভাবিক নিশ্বাস নিতে মনে হয় নাকে কি যেনো আটকে আছে,, আবার নাক দিয়ে পানিও পড়ে। গায়ে হালকা জ্বর ও আছে, আবার সাথে মাথা ব্যাথা। তিনি ডাক্তারের কাছে গেলেন, ডাক্তার বললেন, আপনার সাইনুসাইটিস হয়েছে,........
বিস্তারিত

গর্ভাবস্থায় কি চা-কফি পান করা যায়?

ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা) ,Consultant Sonologist
চা ও কফি আপনাদের অনেকেরই প্রছন্দের পানীয়। তাই গর্ভাবস্থায়ও খেতে চান, তাই না? এ ক্ষেত্রে আমাদের জানা উচিত এই পানীয় পান করা যাবে কি না, গেলে কতটুকু করা যাবে।......
বিস্তারিত

বাচ্চাদের ফল ও সবজি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলবেন কিভাবে?


পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন।বিএসসি (সম্মান), এমএসসি (প্রথম শ্রেণী) (ফলিত পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি)

মহিলাদের ইনফার্টিলিটি দূর করার ক্ষেত্রে ডিম্বাণুর গুণাগুণ কেন গুরুত্বপূর্ণ?


ডাঃ হাসনা হোসেন আখী,এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য),এমএস (অবস এন্ড গাইনী)

কিডনী সিস্ট কতটা ঝুঁকিপূর্ণ ?


ডাঃ মোহাম্মদ ইব্রাহিম আলী,এম.বি.এস,বিসিএস (স্বাস্থ্য) ,এমএস (ইউরোলজি)

শিশুদের ডায়েট কেমন হওয়া উচিত ?


নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,Bsc (Hon's) Msc (food & Nutrition)

লিভারের সুস্থতায় কি করবেন?


নুসরাত জাহান, ডায়েট কনসালটেন্ট

অনিয়মিত পিরিয়ডের কারণ , চিকিৎসা ও ঘরোয়া প্রতিকার


ডাঃ হাসনা হোসেন আখী