Royalbangla
রয়াল বাংলা ডেস্ক
রয়াল বাংলা ডেস্ক

মুখের কালো দাগ দূর করার উপায়

দাগ

প্রথম দেখায় ব্যাক্তিত্বের প্রকাশ করে মুখ-মন্ডলের ভাব। সতেজ ও প্রাণোচ্ছল ত্বকের বদলে তা যদি থাকে ম্রিয়মান এবং কালো দাগে পূর্ণ তবে তা বেশ বিব্রতকর। নিজের আত্মবিশ্বাস কমিয়ে দেয় নিষ্প্রাণ মুখমন্ডল। খুব সহজ কিছু পদ্ধতিতে মুখের ত্বক পরিষ্কার ও সজীব রাখা যায়।

মুখের দাগ হওয়ার কারণ


* বয়স বৃদ্ধির কারণে
* সুর্য্য তাপের প্রভাবে
* ভিটামিনের অভাবে
* ত্বকের অপুষ্টি জনিত কারণে
* হরমোনের অসামঞ্জস্যতার কারণে
* অপরিমিত ঘুম
* অধিক দুশ্চিন্তা
* ব্রোন
* ঔষধের প্রভাবে
* গর্ভকালীন সময়ে
এছাড়াও নানা ধরনের কারণে মুখে কালো দাগ দেখা দিতে পারে। কৃত্রিম মেকআপ দিয়ে সেগুলো ঢেকে না রেখে প্রাকৃতিক উপাদানের সাহায্যে ভেতর থেকে ত্বকের স্বাস্থ্য উন্নতি ও সতেজ করে তোলা উচিৎ।

    কালো দাগ দূর করার অতি সাধারণ উপায়


  1. ১। আলুঃ
    আলু সবজি হিসেবে যেমন ব্যবহার উপোযোগী তেমনি প্রাকৃতিক পরিষ্কারক হিসেবে দারুণ কার্যকরী। ত্বকের কালো দাগ ও ক্ষত দূর করে এবং এনজাইম সমূহকে উদ্দীপ্ত করে ত্বকের সুসাস্থ্য নিশ্চিত করে।
    * আলু পাতলা করে কেটে নিয়ে কালো দাগ দেখা দেওয়া অঞ্চলে রেখে দিতে হবে। এভাবে ১ মিনিট রেখে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।
    * আলু বেটে বা ব্লেন্ড করে পেস্ট তৈরি করতে হবে। এর মধ্যে ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে মুখে মেখে ১৫ মিনিট ধরে শুকাতে দিতে হবে। এরপর হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।
    * ১ টি পুর্ন আলুর রস নিতে হবে তার মধ্যে লেবুর রস ও ১ চিমটি কাঁচা হলুদের গুঁড়ো মিশাতে হবে। এরপর কালো দাগ হওয়া জায়গা গুলোতে মেখে শুকিয়ে তারপর তুলে ফেলতে হবে।
  2. ২। লেবুর রসঃ
    খুব সহজেই পাওয়া যায় লেবু এবং তাৎক্ষনিক ত্বকে সতেজ ভাব ফিরিয়ে আনতে এর তুলনা হয় না।
    * তাজা লেবুর রসে সুতি কাপড় ভিজিয়ে কালো দাগের স্থানে মেখে দিতে হবে।
    * লেবু রস শুকিয়ে গেলে, উষ্ণ পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
    * এভাবে ২ সপ্তাহ ব্যবহার করলে প্রাণবন্ত ভাব ফিরে আসে ত্বকে।
  3. ৩। অ্যালোভেরা বা ঘৃতকাঞ্চনঃ
    অ্যালোভেরা জেল এ থাকে পলিস্যাকারাইড যা ত্বকের নতুন কোষ সৃষ্টি বৃদ্ধি করে এবং কালো দাগ সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে।
    * ১ টি অ্যালোভেরা পাতা থেকে সব রস বের করে সরাসরি আক্রান্ত স্থানে ব্যবহার করতে হবে।
    * আঙ্গুলের ডগা দিয়ে কয়েক মিনিট ম্যাসাজ করতে হবে। অতঃপর ১৫-২০ মিনিট পরে পরিষ্কার উষ্ণ পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।
    * দিনে ১/২ বার করে কয়েক সপ্তাহ নিয়মিত অনুসরন করলে দারুণ উপকার পাওয়া যায়।
  4. ৪। আনারসঃ
    আনারসের প্রাকৃতিক আসিড বা অম্ল উপাদান ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করে দ্রুত।
    * মুখের কালো দাগের উপর আনারসের রস মেখে ১৫ মিনিট রেখে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।
    * আনারসের কেটে নেওয়া টুকরো ও ব্যবহার করা যেতে পারে।
  5. ৫। কাঁচা হলুদঃ
    ত্বকের অনুজ্জ্বলতা দূর করে এবং মুখের ত্বকের ক্ষয় রোধ করে।
    * ২ চা চামচ কাঁচা হলুদ, সামান্য দুধ এবং এক্টু খানি লেবুর রস একটি বাটিতে নিয়ে মিশাতে হবে।
    * মুখ মন্ডলে এই মিশ্রণ মেখে শুকিয়ে যাওয়া অব্ধি অপেক্ষা করতে হবে, এরপর হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কার করতে হবে।
  6. ৬। পেঁপেঃ
    পেঁপেতে থাকা এনজাইম সমুহ ত্বককে ভিতর থেকে স্বাস্থ্যবান করে তোলে।
    * ১ টুকরো কাঁচা পেঁপে কালো দাগ যুক্ত ত্বকের উপর রেখে ২০ মিনিট রেখে তারপর পরিষ্কার করে ফেলতে হবে। সপ্তাহে ২ বার ব্যবহারই যথেষ্ট।
    * পেঁপের রস করে তারমধ্যে অল্প লেবুর রস মিশিয়ে মুখমন্ডোলে ব্যবহার করা যেতে পারে।
  7. ৭। দইঃ
    মুখের তারুন্যভাব ধরে রাখতে দই দারুণ কার্যকরী।
    * ৪ চা চামচ দই, ২ চা চামচ টমেটোর রস একটি মাটিতে নিয়ে মিশাতে হবে।
    * মিশ্রণ মুখে মেখে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন ।
  8. খাদ্য তালিকায় বেশি বেশি শাক সবজি রাখুন এবং দুশ্চিন্তা থেকে দূরে থাকুন। মুখমন্ডল ও চেহারায় মলিন ভাব স্পর্শ ও করবে না।
  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে [email protected]
পরবর্তী পোস্ট

নরমাল ডেলিভারির জন্য টিপস


বুকে ধড়ফড় করে?? কি করবেন??

ডা: অনির্বাণ মোদক পূজন,হৃদরোগ, বাতজ্বর ও উচ্চ রক্তচাপ রোগ বিশেষজ্ঞ
একটু খেয়াল করলেই বুঝবেন হঠাৎ করেই বুকের ভেতরটা ধড়ফড় করে। এ সমস্যাটি বিশেষ করে নারীদের মধ্যে বেশি দেখা যায়। বুক ধড়ফড় করলে সবাই ভয় পেয়ে যান।আবার অনেকে মনে করেন ভয় পেলেই এমনটা হয়। ........
বিস্তারিত

কোলেস্টেরল কি ? কিভাবে ক্ষতি করে?

ডা. মুহম্মদ মুহিদুল ইসলাম,সায়েন্টিফিক অফিসার
আমাদের শরীর যদি একটা ছোট্ট শহর হয় তবে এই শহরের প্রধান সমাজবিরোধী হচ্ছে 'কোলেষ্টেরল।' এর সাথে কিছু সাঙ্গ পাঙ্গ আছে। তবে একেবারে ডানহাত 'ট্রাইগ্লিসারাইড।'.................
বিস্তারিত

ড্রিপ্রেশন ম্যানেজমেন্টে পরিবার বা প্রিয়জনের ভূমিকা

জিয়ানুর কবির,ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিষ্ট
ডিপ্রেশনের চিকিৎসায় মেডিসিন ও সাইকোথেরাপী দুই ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি ব্যবহৃত হয়। বিষন্নতার মাত্রা অল্প হলে শুধুমাত্র সাইকোথেরাপি দিয়ে চিকিৎসা করলে ভালো হয়ে যায়।....
বিস্তারিত

ডায়াবেটিক পেশেন্ট কি উপায়ে তরমুজ খাবেন

পুষ্টিবিদ মুনিয়া মৌরিন মুমু
ঋতু হিসেবে গ্রীষ্মকাল অনেকের পছন্দের তালিকায় থাকে। গ্রীষ্মকালের অন্যান্য বৈশিষ্ট্যের মধ্যে একটি চমৎকার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এই মৌসুমে পুষ্টিগুণে ভরপুর সব মুখরোচক ফল .....
বিস্তারিত