Royalbangla
ডাঃ আয়েশা রাইসুল (গভঃ রেজিঃ H-১৫৯৮)
ডাঃ আয়েশা রাইসুল (গভঃ রেজিঃ H-১৫৯৮)

ডায়াবেটিস রোগীদের পায়ের যত্নে কিছু টিপস

টিপস

ডায়াবেটিসে রক্তে শর্করার পরিমাণ বেড়ে গিয়ে হাত ও পায়ের স্নায়ু মারাত্নকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ রোগে পায়ে রক্তের প্রবাহ কমে যায়। ডায়াবেটিস রোগীদের শতকরা ৬০-৭০ ভাগই পায়ের স্নায়ু জটিলতায় ভুগে থাকেন।

নিউরোপ্যথিতে তারা পায়ে কম শক্তি এবং ব্যথা অনুভব করেন। এতে অনুভূতি ভোঁতা হয়ে যায়। ফলে এসব রোগীরা অনেক ছোটখাটো আঘাত, পোড়া বা কাটাছেঁড়ার মতো সমস্যা টেরই পান না। কাজেই এ সময় পায়ের প্রতি একটু আলাদা যত্নবান হতেই হয়। নতুবা পায়ের বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে।

এক্ষেত্রে আমেরিকান ডায়াবেটিক এসোসিয়েশন প্রতি পাঁচজনের একজনকে হাসপাতালে পায়ের যত্ন নেওয়ার প্রতি জোর দিয়েছেন। পাশাপাশি এটি ডায়াবেটিস রোগীদের পায়ের যত্নে এমন কিছু টিপস দিয়েছেন যা তাদের পায়ের সমস্যাসহ স্বাস্থ্যগত নানা জটিলতা এড়াতে সাহায্য করবে।- জেনে নিন ডায়াবেটিস রোগীরা পায়ের যত্নে করবেন যেসব কাজ-

পা পরিষ্কার রাখুন প্রতিদিন পা পরিষ্কার করুন এবং তা শুষ্ক রাখুন।এক্ষেত্রে হালকা সাবান এবং উষ্ণ গরম পানি ব্যবহার করুন। এরপর পা ভালোভাবে শুকিয়ে লোশন লাগান।

প্রতিদিন পা পরীক্ষা করুন

সময় করে প্রতিদিন পা ভালোভাবে পরীক্ষা করুন। পা কেটে গেল কি না, পায়ে লালচে দাগের উদয় ঘটল কি না, খোসপাঁচড়ার সংক্রমণ ঘটল কি না সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। প্রয়োজনে পায়ের নজরদারির জন্য আয়না ব্যবহার করুন।

আর্দ্রতা বজায় রাখুন

নিয়মিত লোশন ব্যবহারে পায়ের আর্দ্রতা বজায় থাকে। কাজেই পায়ের যত্নে এটি নিয়মিত ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

নখ কাটার সময় সতর্ক থাকুন

পায়ের নখ কাটার সময় কোন অংশ যাতে কেটে না যায় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। এছাড়া যে ব্লেড বা নেইল কাটার ব্যবহার করবেন তা অবশ্যই পরিষ্কার রাখুন তা না হলে ইনফেকশন হতে পারে। তবে নখ খুব ছোট করে না কাটাই ভালো।

ভালোমানের জুতা ব্যবহার করুন

কখনই খালি পায়ে হাঁটবেন না। হাঁটার সময় অবশ্যই।ভালোমানের জুতা ব্যবহার করুন। আর জুতাগুলো যাতে পায়ের মাপমতো হয় সেদিকে বিশেষ খেয়াল রাখুন। নতুবা পায়ের ক্ষতি হতে পারে।

নরম মোজা ব্যবহার করুন

ডায়াবেটিস রোগীদের পায়ের মোজা সুতি বা উলের হলে বেশি ভালো হয়। তবে খেয়াল রাখবেন-মোজার উপরদিকের রাবার যেন খুব বেশি টাইট না হয়। এতে পা সুরক্ষিত থাকবে।

পায়ের রক্ত সঞ্চালনের দিকে খেয়াল রাখুন

কখনোই একনাগাড়ে বেশিক্ষণ বসে থাকবেন না। পা কে নড়াচড়ার সুযোগ করে দিন। প্রয়োজনে কিছুক্ষণ পর পর হাঁটার চেষ্টা করুন। এতে পায়ের রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকার পাশাপাশি পায়ের নানা ক্ষতি এড়ানো সম্ভব হবে।

ব্যায়ামের সময় সতর্ক থাকুন

আরামদায়ক জুতা পরে হাঁটতে যান এবং কাজ করুন। তবে জুতা খুলে রেখে কখনই কোন ধরনের ব্যায়াম করবেন না।

ছোট সমস্যাতেও সতর্ক হোন

পায়ের ছোটখাট যে কোন ধরনের সমস্যা বিশেষ করে ক্ষত, পুড়ে যাওয়া, কাটা প্রভৃতি অবহেলা করবেন না। সঙ্গে সঙ্গেই একজন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। তবে পায়ে কখনই হিটিং প্যাড ব্যবহার করবেন না। এতে পায়ের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

লেখক

ডাঃ আয়েশা রাইসুল (গভঃ রেজিঃ H-১৫৯৮)
বি.এইচ.এম.এস (ঢাঃ বিঃ), এক্স-হাউজ ফিজিসিয়ান
বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতাল।
চেম্বারঃ
খান ক্লাসিকেল হোমিওপ্যাথি।
উওর কাজীপাড়া,মিরপুর, ঢাকা।
হেল্পলাইনঃ 01916-023571, 01976-023572 (রিসিপসন)।
www.facebook.com/Dr.AyeshaRaisul.B.H.M.S

  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে royal_bangla@yahoo.com
পরবর্তী পোস্ট

বাচ্চাদের ফল ও সবজি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলবেন কিভাবে?


ওভারিয়ান সিস্ট: লক্ষণ, চিকিৎসা ও পরামর্শ

ডাঃ হাসনা হোসেন আখী,এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য),এমএস (অবস এন্ড গাইনী)
ওভারিয়ান সিস্ট
মহিলাদের প্রজননতন্ত্রের অন্যতম হল ডিম্বাশয় যা ডিম্বাণু (ঋতুস্রাবের সময়ে ডিম্বানু বিমুক্ত করে) উৎপাদনে সাহায্য করে। ডিম্বাশয়ের মধ্যে ছোট ছোট গ্রন্থি থাকে যেগুলি ঋতুস্রাবকালীন সময়ে উৎপন্ন হয় এবং ডিম্বানু মুক্ত করে শরীরের সঙ্গে মিশে যায়। ......
বিস্তারিত

দাঁত ব্রাশের সময় যে ৭টি ভুল করি আমরা

ডা: এস.এম.ছাদিক,বি ডি এস (ডি ইউ),এম পি এইচ (অন কোর্স)
Brushing
শুধুমাত্র ক্যাভেটিস এর বিরুদ্ধে লড়াই করাই দাঁত ব্রাশ করার মুখ্য উদ্যেশ্য নয়। বরং মুখের দুর্গন্ধ রোধ, দাঁতের হলদে ভাব দূর করে প্রাণবন্ত হাসি, ও দাঁতের সুস্থতা রক্ষাও এর উদ্দ্যেশ্য।........
বিস্তারিত

ছোটদের সহজে বাংলা বানান শেখাবেন যেভাবে--

রয়াল বাংলা ডেস্ক
বাংলা বানান
বাচ্চাদের বাংলা বানান শেখানো কতটা কঠিন ও চ্যালেঞ্জিং সেটা যিনি বানান শিখিয়েছেন তিনিই ভাল জানেন। বাংলাদেশে প্রাথমিক স্কুলে অনেক বাচ্চােই ভাল করে বানান না শিখেই ক্লাস প্রমোশন পায়। একটু বড় হলেই এই বাচ্চাগুলো প্রতিষ্ঠানের বোঝায় পরিণত হয়। ........
বিস্তারিত

গর্ভাধারণের আগে এবং গর্ভাবস্থায় ফলিক অ্যাসিড কেন খাবেন।

ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা)
ফলিক এসিড
ফলিক অ্যাসিড স্পাইনা বাইফিডা সহ নিউরাল টিউব ডিফেক্টস নামে পরিচিত জন্মগত ত্রুটি প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।........
বিস্তারিত
Health Benefits of liver

মুরগীর কলিজা কি সত্যিই বিষাক্ত?


পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন।
ঘুম

অনিদ্রার ব্যবস্থাপনা


জিয়ানুর কবির
প্রস্টেট সমস্যা

পুরুষের প্রস্টেট সমস্যা


ডাঃ মোহাম্মদ ইব্রাহিম আলী,এমবিবিএস,বিসিএস,এমএস(ইউরোলজী)
ডেংগু

ডেংগি ও প্লেইটলেট(ডেংগু নিয়ে কিছু ভ্রান্ত আতঙ্ক)


ডাঃ গুলজার হোসেন
ডায়েট

ওজন কমানোর ডায়েট


ডাঃ গুলজার হোসেন
ব্রেস্ট ক্যান্সার

ব্রেস্ট এ সিস্ট কি বিপদজনক?


ডাঃ লায়লা শিরিন

হাপানি
1
ব্ল্যাক ফাঙ্গাস কি
2
Bleeding in Anus
3