loading...









loading...

Royalbangla
Dietitian Shirajam Munira
Dietitian Shirajam Munira

আপনি জানেন কী শসা মানবদেহের জন্য কতটা দরকারি ?

‍সুখাদ‌্য



  1. আজকের প্রসঙ্গ শসা
    প্রথমেই এর পুষ্টি নিয়ে না বললেই নয়। শসা ভিটামিন এবং মিনারেলেস পরিপূর্ণ একটি সবজি। এর ৯৬ শতাংশ পানি। শসা ভিটামিন-কে, ভিটামিন-সি, ভিটামিন-এ, ফলিক এসিড, পটাশিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজের উত্তম উৎস। এ ছাড়া রিবোফ্লাবিন, প্যান্টোথেনিক এসিড, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, সালফার, সিলিকা এবং ভিটামিন বি-৬ আছে বেশি পরিমাণে। শসা থেকে খাদ্য আঁশ পাওয়া যায়। তবে এতে স্যাচুরেটেড ফ্যাট আর কোলেস্টরলের পরিমাণ খুব কম বলে এটি প্রায় সব ধরনের মানুষের জন্যই দারুণ উপকারী। এতে আরো রয়েছে ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস, কিউকারবিটাকিন্স, লিগনান্স এবং ফ্লাভনয়েডস। এ ছাড়া কম কোলেস্টরল ও কম ফ্যাট-যুক্ত শসা থেকে বাড়তি ক্যালোরি পাওয়া যায় বলে যারা ওজন কমাতে বা দীর্ঘদিন আদর্শ ওজন ধরে রাখতে চান তাদের জন্য শসা সব সময়ই আদর্শ একটি খাদ্য হিসেবে বিবেচিত। এতে কোনো সম্পৃক্ত চর্বি বা কোলেস্টেরল নেই।
    এবার আসি স্বাস্থ্য উপকারিতা নিয়ে:
  2. এক
    হাইড্রেট করে অথবা পানিশূন্যতা দূর করে:
    শশা সবচেয়ে হাইড্রেটিং খাবারগুলির মধ্যে একটি। দেহের পানিশূন্যতা দূর করতে সাহায্য করে এটি।ধরুন আপনি এমন কোথাও আছেন, যেখানে হাতের কাছে পানি নেই, কিন্তু শসা আছে।বড়সড় একটা শসা চিবিয়ে খেয়ে নিন। পিপাসা মিটে যাবে।আপনি হয়ে উঠবেন চনমনে।কারণ, শসার ৯০ শতাংশই পানি এবং এগুলিতে গুরুত্বপূর্ণ ইলেক্ট্রোলাইট থাকে।তারা গরম আবহাওয়াতে বা কোনও ওয়ার্কআউটের পরে ডিহাইড্রেশন রোধ করতে সহায়তা করতে পারে।
    স্বাস্থ্যকর অন্ত্র বজায় রাখতে, কোষ্ঠকাঠিন্য রোধ করতে, কিডনিতে পাথর এড়ানো এবং আরও অনেক কিছুর জন্য হাইড্রেটেড থাকা জরুরি। আবার কখনও কখনও আপনি শরীরের ভেতরে-বাইরে প্রচণ্ড উত্তাপ অনুভব করেন।দেহে জ্বালাপোড়া শুরু হয়।এ অবস্থায় একটি শসা খেয়ে নিন, আরাম পাবেন।
  3. দুই
    হাড়ের স্বাস্থ্য:
    ভিটামিন কে রক্ত জমাট বাঁধতে সহায়তা করে এবং এটি হাড়ের স্বাস্থ্যের পক্ষে সহায়তা করতে পারে।মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগের (ইউএসডিএ) অনুযায়ী, ১৪২ গ্রাম শসাতে ১০.২ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন কে রয়েছে।
    আমেরিকান ডায়েটারি গাইডলাইন ২০১৫-২০২০ ভিটামিন কে নেয়ার প্রস্তাবনা দেয় এইভাবে-
    ১৯ বছর বা তার বেশি বয়সের মহিলাদের জন্য প্রতিদিন ৯০ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন কে গ্রহণ করতে হবে ও একই বয়সের পুরুষদের জন্য ১২০ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন কে গ্রহণ আবশ্যক।সেক্ষেত্রে শসার কিন্তু কোনো বিকল্প নেই।
    প্রাপ্তবয়স্কদের লিঙ্গ এবং বয়সের উপর নির্ভর করে দিনে এক হাজার-১,২০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন।শসায় ক্যালসিয়ামও রয়েছে।গুরুত্বপূর্ন বিষয় হচ্ছে ভিটামিন কে ক্যালসিয়াম শোষণকে উন্নত করতে সহায়তা করে।তাই বোঝার বাকি থাকেনা,শসা হচ্ছে একটি পাওয়ার প্যাকেজ যা হাঁড় সুরক্ষায় সাহায্য করতে সক্ষম।
  4. তিন
    ক্যান্সার:
    শসাতে রয়েছে cucurbitacin যা তিক্ত স্বাদযুক্ত ও উচ্চ পুষ্টিযুক্ত। ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অফ হেলথ সার্ভিসেস-এর একটি নিবন্ধ অনুসারে, cucurbitacin ক্যান্সার কোষগুলিকে প্রজনন বন্ধ করে ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়তা করে।এছাড়াও এর ত্বক সহ ১৩৩গ্রাম শসা প্রায় ১ গ্রাম ফাইবার সরবরাহ করে।ফাইবার কলোরেক্টাল ক্যান্সার থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করতে পারে।
  5. চার
    হৃদযন্ত্রের সুস্থতা:
    শসাতে আছে ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম এবং ভিটামিন কে। এই তিনটি উপাদান হৃদযন্ত্রের সুস্থতা রক্ষা করতে সাহায্য করে। ম্যাগনেসিয়াম ও পটাসিয়াম গ্রহণের মাধ্যমে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। নিয়মিত শসা খাওয়া কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় এবং শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখে।আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের ভাষ্যমতে ফাইবার কোলেস্টেরল পরিচালনা এবং কার্ডিওভাসকুলার সম্পর্কিত সমস্যা রোধে সহায়তা করে।
  6. পাঁচ
    ডায়াবেটিস:
    শসা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিরোধে ভূমিকা রাখতে পারে। এটিতে এমন পদার্থ রয়েছে যা রক্তে শর্করাকে হ্রাস করতে বা রক্তের গ্লুকোজকে অত্যধিক উচ্চতা বৃদ্ধি থেকে বিরত করতে সহায়তা করে।পানিতে সমৃদ্ধ হওয়ায় তারা আপনার পেটে প্রসারিত হয় ফলে মিষ্টি নাস্তার জন্য আকাঙ্ক্ষাকে হ্রাস করে, যা ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করার একটি দুর্দান্ত উপায়।
  7. ছয়
    স্মৃতি বৃদ্ধি ও ব্যথার উপশম:
    সম্প্রতি, বিজ্ঞানীরা ফ্ল্যাভোনয়েড ফিসেটিন সম্পর্কে আগ্রহী হয়েছেন।শসা ফিশেটিনের একটি ভাল উৎস যা গবেষণায় স্নায়ু কোষ রক্ষা, স্মৃতিশক্তি উন্নত করতে এবং আলঝাইমার ঝুঁকি হ্রাস করার সাথে যুক্ত রয়েছে।একই পর্যালোচনাতে ফিসেটিন ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে এমন আশাজনক ফলাফল পাওয়া গেছে।এছাড়াও ফ্ল্যাভোনয়েড শরীরের বিষাক্ত ফ্রি রেডিক্যাল এর মাত্রা কমিয়ে নানা ধরনের ব্যথার উপশম ঘটায়।
  8. সাত
    কোষ্ঠকাঠিন্য রোধ করুন:
    এরেপসিন নামক অ্যানজাইম থাকার কারণে শসা হজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা সমাধান করে থাকে।এছাড়াও এতে প্রচুর পরিমাণে পানি থাকে এবং তাদের ত্বকে অদৃশ্য ফাইবার থাকে।পানি এবং ফাইবার উভয়ই খাদ্য পরিপাকতন্ত্রের মধ্য দিয়ে দ্রুত এবং আরও সহজেই যেতে সাহায্য করে, কোষ্ঠকাঠিন্য রোধে সহায়তা করে।শসার রস আলসার, গ্যাস্ট্রাইটিস, অ্যাসিডিটির ক্ষেত্রেও উপকারী।
  9. আট
    স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখে:
    শসাতে খুব কম ক্যালোরি থাকে ও এদের ত্বকে ফাইবারও থাকে।ফাইবারযুক্ত খাবার স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখতে সহায়তা করে।
  10. নয়
    ত্বকের পরিচর্যায় উপকারী:
    শসাতে সিলিকা নামক একটি উপাদান রয়েছে, যা শরীরে প্রবেশ করার পর কোষের কর্মক্ষমতাকে বাড়িতে তোলে।ফলে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি তো পায় সেই সঙ্গে শরীরের প্রতিটি পেশী, লিগামেন্ট এবং হাড়ের শক্তিও বৃদ্ধি পেতে শুরু করে।এখানেই শেষ নয়, শসা খাওয়া শুরু করলে দেহের ভেতরে পানির পরিমাণ বাড়তে শুরু করে যার প্রভাবে ত্বকের ভিতরে জমে থাকা টক্সিক উপাদান বেরিয়ে য়ায়। এর ফলে ত্বকের বয়স কমতে শুরু করে।এভাবে একটি শসা কিন্তু জয়া আহসানের মতো অল্প বয়সী লুক এনে দিতে পারে!
  11. দশ
    মানসিক চাপ কমায়:
    শসা ভিটামিনে ভরপুর, বিশেষ করে ভিটামিন বি১, বি৫ ও বি৭ রয়েছে এতে। এ ভিটামিনগুলো সমন্বিতভাবে স্নায়ুকে শিথিল করে এবং মানসিক চাপের জন্য হওয়া উদ্বেগ কমাতে সাহায্য করে।
  12. এগার
    দুর্গন্ধ কমায়:
    আয়ুর্বেদের নীতিমালা অনুসারে শসা সেবন পেটে অতিরিক্ত উত্তাপ নিঃসরণে সহায়তা করে যা দুর্গন্ধ রোধে প্রাথমিক কারণ। আপনার মুখে এক স্লাইস শসার টুকরো রোগজনিত ব্যাকটেরিয়া থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করে।
    কোনো কিছু যে অতিরিক্ত ভালো না,মুরব্বীরা বলেন তাই না?ডায়েট মানেই রাত দিন শসা এ ধারণাটি ভুল।কেনো ভুল চলুন তা জেনে নেই-
    অতিরিক্ত ভিটামিন সি এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া:
    ভিটামিন সি একটি প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর উপাদান। এছাড়াও, এটি ফ্লু এবং স্কার্ভি সহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যের অবস্থার প্রতিরোধ ও লড়াইয়ে মুখ্য ভূমিকা পালন করে। এটি একটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টও।তবুও, প্রস্তাবিত সীমা অতিক্রম করা কোনো ক্ষেত্রেই ঠিক নয়।শসা বেশি খলে ভিটামিন সি ও প্রচুর পরিমাণে খাওয়া হয়, তখন এটি সহজাত অ্যান্টি-অক্সিডেটিভ প্রকৃতির বিরুদ্ধে প্রো-অক্সিডেন্টের মতো কাজ করে।আর তখন ফ্রি রেডিকেলের বিরুদ্ধে ভিটামিন সি এর কার্যক্ষমতার ঘাটতি ঘটে এবং ফলাফল আপনি ক্যান্সার, ব্রণ, অকাল বয়সের ঝুঁকিতে পড়বেন।যদিও ভিটামিন সি পানিতে দ্রবণীয় এবং অতিরিক্ত ভিটামিন সি প্রস্রাবের সাথে শরীর থেকে বেরিয়ে যায় তবে ঘন ঘন প্রস্রাব করা আমাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে মোটেই ভাল না এবং এজনয ভিটামিন সি গ্রহণের সীমাবদ্ধতায় রাখা শ্রেয়।

  13. কিডনীর জন্য ক্ষতিকর:
    অতিরিক্ত পটাশিয়াম কিডনীর উপর চাপ ফেলে ।শসার পানির একটি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হল এটি আপনার কিডনির পক্ষে ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। শসা থেকে প্রচুর পরিমাণে পানি রক্তনালীএবং হার্টের উপর চাপ সৃষ্টি করে যা কিডনির সিস্টেমকে ভারসাম্যহীনতার দিকে নিয়ে যায়।

  14. বিষক্রিয়া হতে পারে:
    যদিও শসা একটি স্বাস্থ্যকর ফল তবে এটিতে ছোট ছোট প্যাচ থাকে যা এর স্বাদ তিক্ত করে তোলে।শসার এই ক্ষুদ্র অংশে অত্যন্ত বিষাক্ত ট্রাইটারপেইনয়েডস বা কিউকিউরবিটাসিন যৌগ থাকে। সুতরাং এটি গুরুত্বপূর্ণ যে আমরা আমাদের শসা খাওয়া সীমাবদ্ধতার মধ্যে রেখেছি।অতিরিক্ত খেলে বিষক্রিয়া হতেই পারে!
    এছাড়াও অনেকের ক্ষেত্রে চুলকানি, মুখ বা মুখ ফোলাভাব, গলা সংক্রমণ ইত্যাদির মতো প্রতিক্রিয়ার ঘটেছে।তাছাড়া যাদের ঠান্ডার সমস্যা তাদের সাইনোসাইটিস হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
    কী বুঝলেন?এর মানে দাঁড়ায় অতিরিক্ত শসা খাওয়া যাবেনা।
    সবশেষে কিছু টিপস না দিলে তো হচ্ছে না-
  15. এক
    সকালে খালি পেটে শসা খাবেন না
  16. দুই
    এসিডিটি থাকলে শসার বিচি ফেলে খাবেন।
  17. তিন
    বেশি রাতে শসা না খাওয়া উত্তম
  18. চার
    কাঁচা শসা বেশি উপকারি তাই রান্নার চেয়ে কাঁচাটাই গ্রহণ করবেন ।
  19. পাঁচ
    অন্যান্য সবজির সঙ্গে সালাদ খাওয়া উত্তম।
  20. ছয়
    ওজন কমাতে টকদইয়ের সঙ্গে শসার টুকরো মিশিয়ে খেতে পারেন।
    শসা নিয়ে নিশ্চয়ই আজ অনেক কিছু জানতে পারলেন।শসা ডায়েটে রাখুন কিন্তু তা যেনো আবার অতিরিক্ত না হয় খেয়াল রাখবেন।ভালো থাকুন,সুস্থ থাকুন ।
    ধন্যবাদ
    Dietitian Shirajam Munira
    কনসালটেন্ট
    ইবনেসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

    কেয়ার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল
  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে [email protected]
পরবর্তী পোস্ট

পছন্দের ফল কিভাবে খাচ্ছেন??


ব্রণ সমস‌্যার ঘরোয়া সমাধান- সহজ এবং শতভাগ কার্যকরী

রয়াল বাংলা ডেস্ক
মোবাইল ফোনের রেডিয়েশন আপনার কিভাবে ক্ষতি করছে? জেনে নিন।

রয়াল বাংলা ডেস্ক
পাইলস কি, কেন এবং কিভাবে হয়?

Colorectal Care Dr. Md Ashek Mahmud Ferdaus
কোষ্ঠকাঠিন্য কি, এর জটিলতা ও সমাধান

Colorectal Care Dr. Md Ashek Mahmud Ferdaus
ফুড সাপ্লিমেন্ট কি ? কেন নেবেন?

পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী
ইসবগুলের ভুসি খাওয়ার উপকারিতা ও নিয়ম

Colorectal Care Dr. Md Ashek Mahmud Ferdaus
পুরুষের বন্ধ্যাত্বের সমস্যা কেন বাড়ছে ?

ডাঃ আয়েশা রাইসুল
খারাপ কোলেস্টেরল কি ? কিভাবে কমানো যায় ?

পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা
ভাতের আসক্তি কমানোর উপায় কি?

ডায়েটিশিয়ান ফারজানা
প্রি-ডায়াবেটিস বা ডায়াবেটিস এর ঝুকি

Nutritionist Iqbal Hossain
ফর্সা হতে চান?

পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা
ভাত কতটা ওজন বাড়ায়?

পুষ্টিবিদ তাহমিনা আক্তার
গ্রিন টি বা সবুজ চা কেন খাবেন ?

Nusrat Jahan
এলার্জি কিভাবে কমাবেন?

Dietitian Shirajam Munira
গ্যাসের সমস্যা ওষুধ খেয়ে না কমিয়ে প্রাকৃতিক উপায়ে কমান

ডায়েট কনসালটেন্ট নুসরাত জাহান
ধাতু রোগ কি? কেন কিভাবে হয়? কী করণীয়

royalbangla desk
মাইগ্রেন থেকে দূরে থাকবেন কিভাবে?

নুসরাত জাহান, ডায়েট কনসালটেন্ট
চুল কি একটু বেশি পড়ছে? পর্ব-১

পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী
কিটো ডায়েটের নেগেটিভ দিক!

ডাঃ আয়েশা রাইসুল (গভঃ রেজিঃ H-১৫৯৮)
স্তনের চাকা এবং ক্যান্সার আতংক

ডাঃ লায়লা শিরিন,সহযোগী অধ্যাপক, ক্যান্সার সার্জারী, জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউট ও হাসপাতাল

নরমাল ডেলিভারির জন্য কিছু টিপস

ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা),Consultant Sonologist
'নরমাল' ডেলিভারি হলো এমন একটি ডেলিভারি পদ্ধতি যেখানে কোন প্রকার অস্ত্রোপচার বা সার্জিক্যাল প্রক্রিয়া জড়িত নয়। এটি একটি ভেজাইনাল ডেলিভারি যা স্বতঃস্ফূর্ত,........
বিস্তারিত

কি কি লক্ষণ দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন??

ডা. মোহাম্মদ মাসুমুল হক,আবাসিক চিকিৎসক, ক্যান্সার সোসাইটি হাসপাতাল এন্ড ওয়েলফেয়ার হোম
ক্যান্সার চিকিৎসা একটি দীর্ঘ মেয়াদি চিকিৎসা। এবং এই চিকিৎসার যেহেতু কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে তাই এই চিকিৎসা চলাকালীন একজন ব্যক্তির কিছু শারীরিক সমস্যা বা উপসর্গ দেখা দিতে পারে।.........
বিস্তারিত

সাপে কামড়ালে ওঝা নাকি ডাক্তার?

ডাঃ ইকবাল আহমেদ,সহকারী অধ্যাপক,বার্ণ ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগ
আমাদের দেশে প্রায় ১০০ প্রজাতির সাপ আছে,যার মধ্যে কেবল ৬ প্রজাতির সাপ বিষধর,বাকী ৯৪ প্রজাতির কোন বিষ নেই।অর্থাৎ এই ৯৪ প্রজাতির সাপ কামড়ালে কোন সমস্যা নেই,......
বিস্তারিত

ভীতিটা যখন অহেতুক (Phobia)

জিয়ানুর কবির,ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিষ্ট
কোন পরিস্থিতি, বিষয়, বা বস্তুকে একটি নির্দিষ্ট মাত্রা পর্যন্ত ভয় পাওয়া স্বাভাবিক। তবে এই ভয়ের অনুভূতি স্বাভাবিক মাত্রা অতিক্রম করে এবং জীবন যাত্রাকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করে,......
বিস্তারিত

খিচুড়ী কি আসলেই পুষ্টিকর খাবার??

নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,
খিচুড়ী মানে কি : চাল, ডাল, সবজি তেল যোগে যা বানানো হয় তাইতো?? । পুষ্টিবিদদের ভাষায় প্রোটিন ও ক্যালরির এক দারুন মেলবন্ধন এর নাম খিচুড়ি। এক সময় বন্যা দূর্গত এলাকায় দ্রুত বাচ্চাদের খাবারের অপ্রতুলতা থেকে বাচাতে এই চাল ডাল আলু যোগে খিচুড়ী দেয়া হতো।.......
বিস্তারিত

ক্যান্সার রোগীর মানসিক যত্ন

DR. MOHAMMAD MASUMUL HAQUE,Cancer Prevention Physician
ক্যান্সার শব্দটির সাথেই যেনো জড়িয়ে আছে ভয়, বিষন্নতা, অবসাদ। বিশেষ করে ক্যান্সার নির্ণয় হবার পর একজন ব্যক্তি ও পরিবার যেই উৎকন্ঠতায় সময় কাটায় তা অন্য কারো বুঝা সম্ভব নয়।.....
বিস্তারিত

তীব্র এংজাইটি বা প্যানিকের সাইকোলজিক্যাল ব্যাখ্যা ও চিকিৎসা।

জিয়ানুর কবির,ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিষ্ট
নির্দিষ্ট বাহ্যিক বা অভ্যন্তরীণ উদ্দিপনা ট্রিগার করে ফলে ব্যক্তির মধ্যে বিপদ, ব্যাথা বা শারীরিক সমস্যার হুমকি অনুভব হয় (আমার ক্ষতি হবে, শারীরিক অসুস্থ হয়ে যাব......
বিস্তারিত

সকালে খালি পেটে যে ভুল করবেন না

ডা. মুহম্মদ মুহিদুল ইসলাম,সায়েন্টিফিক অফিসার
অনেকেই মনে করেন সকালে খালি পেটে থাকলে, নানান সমস্যাই ঘিরে ধরে৷ খালি পেটে থাকলে বেশ করেক রকমের শরীর খারাপ হতে পারে৷ এমনও শুনতে পাওয়া যায়, সকালে খালি পেটে থাকলে অ্যাসিডিটি, পেট ব্যথ্যা, গা বমিবমি ভাব, ব্লাড সুগারের সমস্যা দেখা দেয়৷ .......
বিস্তারিত

বাচ্চাকে খাবার খাওয়ানোর ভুল পজিশন

নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,
বাচ্চাকে খাবার কিভাবে খাওয়াতে হয় তা ৭০ ভাগ মা জানেন না। আবার কেউ জেনেও মানেন না। শুধু মা নন বাচ্চা পালার সাথে সম্পর্কিত সব ব্যাক্তি ই এই সব ব্যাপারে পূর্ববর্তী দাদা দাদির ইতিহাস টেনে..........
বিস্তারিত

ক্যান্সার রোগীর রক্ত স্বল্পতা

DR. MOHAMMAD MASUMUL HAQUE,Cancer Prevention Physician
কেমো থেরাপির কারণে রোগীর রক্তের অন্যান্য উপাদানের মতো লোহিত কণিকাও হ্রাস পায়, যার ফলে এনেমিয়া (রক্ত স্বল্পতা) দেখা দিতে পারে। তাই চিকিৎসা চলাকালীন প্রায়ই দেখা যায় রোগীকে রক্ত নিতে হয়।......
বিস্তারিত

সুস্থ এবং ফিট থাকতে একজন নারী প্রাত্যহিক জীবনে যে রুটিন মেনে চলবেন

পুষ্টিবিদ মুনিয়া মৌরিন মুমু
একজন নারী যিনি কর্মজীবী হোন কিংবা গৃহিণী, সকাল থেকে রাত অবধি প্রচন্ড ব্যস্ত সময় পার করেন। সারাদিনের ব্যস্ততায় নিজের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে গিয়ে অনেকেই নিজের প্রতি খেয়াল রাখার সময় পান না।.......
বিস্তারিত

ছেলে না মেয়ে হবে

ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা),Consultant Sonologist
আপনার ছেলে না মেয়ে হবে এটি আসলে পুরোপুরি সৃষ্টি কর্তার হাতে। এখানে আমরা চাইলেও কিছুই করতে পারি না। তবে ছেলে না মেয়ে হবে তাতে বাবা মায়ের কি কোন ভূমিকা নাই?......
বিস্তারিত

গর্ভবতী মহিলা কি কোভিড টীকা নিতে পারবেন ?


ডাঃ হাসনা হোসেন আখী,এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য),এমএস (অবস এন্ড গাইনী)

সম্পর্কের ক্ষেত্রে যৌনস্বাস্থ্যের গুরুত্বপূর্ণতা


ডা. ফাতেমা জোহরা

সত্যিই কি প্লাস্টিকের ডিম আর চালের অস্তিত্ব আছে?


পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন।

ডেংগি ও প্লেইটলেট(ডেংগু নিয়ে কিছু ভ্রান্ত আতঙ্ক)


ডাঃ গুলজার হোসেন

দাঁতের যত্নে গুরুত্বপূর্ণ ৮ টি টিপস


ডাঃ তারিকুল সরকার (তারেক)

মনের যত্ন


জিয়ানুর কবির

করোনায় ফুসফুস কে ভালো রাখবেন কি করে?


পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী

ত্বকের উজ্জ্বলতায় কিশমিশ


পুষ্টিবিদ মুনিয়া মৌরিন মুমু

সাবধান! ক্যানসার তৈরি করে যেসব খাবার! দেখুন হয়তো খেয়েই চলেছেন!


ডাঃ আয়েশা রাইসুল (গভঃ রেজিঃ H-১৫৯৮)

পিত্তথলির ক্যান্সার অপারেশন : কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস


ডাঃ লায়লা শিরিন

মানসিক রোগ: প্রচলিত ভ্রান্ত ধারণা ও সীমাবদ্ধতা


ডা. ফাতেমা জোহরা

ফিস্টূলা বা ভগন্দর বা কেন হয় ? এর সমাধান কি ?


ডাঃ মোঃ মাজেদুল ইসলাম

মলদ্বারে ব্যাথা/ ঘা (এনাল ফিসার) কেন হয় ? এর সমাধান কি ?


ডাঃ মোঃ আশেক মাহমুদ ফেরদৌস

আসুন প্রসবোত্তর বিষন্নতা (Postpartum Depression) সম্বন্ধে জানি


জিয়ানুর কবির

ভিটামিন-E কি কাজে লাগে ? কোথায় পাওয়া যায় ?


পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন

আম খাবো নাকি খাবোনা?


পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী

হাপানি রোগঃ শুধু ওষুধই সব নয়।


ডাঃ স্বদেশ বর্মণ

ব্ল্যাক ফাঙ্গাস বা মিউকরমাইকোসিস (সবার পড়ার জন্য অনুরোধ করবো)


পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন

মলদ্বারের রক্তপাত হলেই কি পাইলস ???


ডাঃ মোঃ মাজেদুল ইসলাম

সাবধান! ক্যানসার তৈরি করে যেসব খাবার! দেখুন হয়তো খেয়েই চলেছেন!


ডাঃ আয়েশা রাইসুল (গভঃ রেজিঃ H-১৫৯৮)

পিত্তথলির ক্যান্সার অপারেশন : কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস


ডাঃ লায়লা শিরিন

মানসিক রোগ: প্রচলিত ভ্রান্ত ধারণা ও সীমাবদ্ধতা


ডা. ফাতেমা জোহরা

ফিস্টূলা বা ভগন্দর বা কেন হয় ? এর সমাধান কি ?


ডাঃ মোঃ মাজেদুল ইসলাম

মলদ্বারে ব্যাথা/ ঘা (এনাল ফিসার) কেন হয় ? এর সমাধান কি ?


ডাঃ মোঃ আশেক মাহমুদ ফেরদৌস