Royalbangla
রয়াল বাংলা ডেস্ক
রয়াল বাংলা ডেস্ক

শরীরের দুর্গন্ধ দূর করার ঘরোায়া উপায়

শরীরের দুর্গন্ধ

গরমে ঘামের মাধ্যমে শরীর তার তাপমাত্রা ও হরমোনের প্রভাব নিয়ন্ত্রন করে থাকে। ঘাম ও ধুলাবালি থেকে শরীরে সাময়িক দুর্গন্ধ হতে পারে, যা খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু অতিরিক্ত দুর্গন্ধ আশেপাশের মানুষের জন্য খুবই বিরক্তিকর ও নিজের জন্য ভীষন বিব্রতকর অবস্থার সৃষ্টি করতে পারে। পারফিউম হয়তো কাপড়ের উপর সাময়িক সুগন্ধ বজায় রাখে কিন্তু প্রাকৃতিক উপায়ে শরীরের দুর্গন্ধ দূর করা অধিক কার্যকরী।
শারীরিক দুর্গন্ধের কারণসমূহ
* আমাদের ত্বকের কিছু ব্যাক্টেরিয়া প্রোটিন ভেঙ্গে ফেলে এবং ঘামের সঙ্গে মিশে তা দুর্গন্ধের জন্ম দেয়।
* বয়স, খাদ্যাভ্যাস, স্বাস্থ্য অথবা লিঙ্গভেদে ব্যক্তির বিশেষ শারীরিক গন্ধ থাকতে পারে।
* ঘর্মগ্রন্থি গুলোর অস্বাভাবিক ঘাম নিঃসরণ
* ধুলাবালি ও ময়লার মধ্যে দীর্ঘক্ষণ অবস্থান করলে
এছাড়াও নানা ধরনের কারণে শরীরের দুর্গন্ধ হতে পারে। নিচে তা দূর করার কিছু প্রাকৃতিক উপায় বর্ণনা করা হলো-
  1. ১। নিয়মিত গোসল করাঃ
    সামাজিক ও ব্যক্তিগত জীবনে পরিচ্ছনতা ভীষন গুরুত্বপুর্ন। আর শরীরের গন্ধ দূর করার জন্য নিয়মিত গোসলের বিকল্প নেই। শারীরিক কসরতের পর বা দিনের শুরুতে অবশ্যই সময় নিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে গোসল করতে হবে।
  2. ২। নারিকেল তেলঃ
    নারিকেল তেলে লরিক এসিড থাকে যা আমাদের ত্বকের ব্যাকটেরিয়া গুলোকে মেরে ফেলে। ফলে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হতে বাধা দেয়।
    * ১ কাপ পানিতে নারিকেল তেল ঢেলে নিতে হবে পর্যাপ্ত।
    * অতঃপর শরীরের যে সব স্থান অধিক ঘামে সেখানে মালিশ করে মেখে দিতে হবে।
    * এটা প্রতিদিন করা যেতে পারে গোসলের পূর্বে। তাহলে ঘাম হলেও গন্ধ কম হবে।
  3. ৩। বেকিং সোডাঃ
    বেকিং সোডা ত্বকের স্যাঁতসেঁতে ভাব দূর করে, ঘামের পরিমান কমিয়ে দেয় যা দুর্গন্ধ দূর করতে খুবই কার্যকরী।
    * ১ চামচ বেকিং সোডা এর সঙ্গে ১ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে।
    * শরীরের ঘাম প্রবন স্থানে মেখে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে শুকিয়ে গেলে, তারপর পরিষ্কার পানিতে গোসল করে ফেলতে হবে।
  4. ৪। চা পাতার তেলঃ
    ত্বক থেকে ব্যাকটেরিয়া ও ফাঙ্গাস দুরকারী উপাদান রয়েছে চা পাতায়। এছাড়াও চা পাতার নিজস্ব সুঘ্রাণ এ সমস্যা সমাধানে একেবারে উপকারী।
    * ২ চামচ চা পাতার তেল এবং ২ চামচ পানি অনুপাতে প্রয়োজন অনুযায়ী মিশ্রণ তৈরি করতে হবে।
    * সারা শরীরে মেখে, ১০ মিনিট পর গোসল সেরে ফেলা উত্তম।
  5. ৫। লেবুর রসঃ
    লেবুর অম্ল ধর্ম ত্বকের পি-এইচ এর মাত্ররা কমিয়ে ব্যাক্টেরিয়ার বংশবৃদ্ধি কমায় এবং মৃত্যু ঘটায়। এছাড়াও বাড়তি সুগন্ধ যুক্ত করে।
    * লেবু অর্ধেক করে কেটে নিতে হবে। * আলতো করে ঘসে শরীরে সারা শরীরে মেখে নিশ্চিত করতে হবে ত্বক পুরোটা রস শুসে নেয়। এরপর শীতল পানিতে গোসল করলে সমগ্র দিন শরীর সতেজ থাকে।
    * ত্বক সংবেদনশীল হলে পানির সঙ্গে লেবু চেপে রস মিশিয়ে সেই পানিতে গোসল করা যেতে পারে।
  6. ৬। নিমপাতাঃ
    হাজার বছর ধরে নানা ধরনের কাজে ঔষধি গুন সম্পন্ন নিমপাতা ব্যবহার হয়ে আসছে। রোগ জীবাণু প্রতিরোধি ও ব্যাকটেরিয়া ধংসকারী নিমপাতা শরীরের দুর্গন্ধ দূর করে এবং ত্বককে যাবতীয় চর্মরোগের নিরাময় করে।
    * নিমপাতা পানিতে ভিজিয়ে রেখে অথবা অল্প পানিতে ফুটিয়ে নিয়ে ঠান্ডা হলে গোসলের পানিতে মিশিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
  7. ৭। টমেটোঃ
    ঘাম প্রতিরোধ করে ও সুগন্ধ সৃষ্টি করে টমেটো।
    * ৭/৮ টি টমেটো চেপে নিলে এক কাপ টমেটোর রস পাওয়া যাবে।
    * ১ বালতি উষ্ণ পানিতে এ রস মিশিয়ে নিতে হবে।
    * এরপর গোসল খানায় এ মিশ্রনের মধ্যে ২০/৩০ মিনিট অবস্থান করে গোসল করতে হবে।
  8. ৮। মৌরিঃ
    খুব সুগন্ধি এ মষলা এক্ষেত্রে দারুণ কার্যকরী।
    * ১ চামচ বাটা মৌরির গুঁড়ো, ১ কাপ পানি পানির মধ্যে দিয়ে ফুটাতে হবে।
    * ঠান্ডা হলে ১ চামচ মধু মিশিয়ে এ গাঢ় তরল শরীরে মেখে ১০/১২ মিনিট পর গোসল করতে হবে।
  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে royal_bangla@yahoo.com
পরবর্তী পোস্ট

জেনে নিন থাইরয়েড সমস্যায় ওষুধ খাওয়ার সঠিক নিয়ম


আক্কেল দাঁত কখন এবং কেন ফেলতে হয়?

ডা: এস.এম.ছাদিক,ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী
সাধারণত আক্কেল দাঁত সম্পূর্ণভাবে উঠার সময় হলো ১৭-২৫ বছর বয়স । কিন্তু ১৭-২০ বছর বয়সের মধ্যেই বুঝা যায় আক্কেল দাঁত সঠিকভাবে উঠবে কি না।....
বিস্তারিত

শালগম এর উপকারীতা

পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন,পুষ্টি কর্মকর্তা
শালগম অত্যন্ত পুষ্টিকর খাদ্য হিসেবে সুপরিচিত। ভিটামিন এ, সি এবং ভিটামিন কে তে ভরপুর থাকে শালগম। শালগমের সবচাইতে ভালো দিক হচ্ছে এদের ক্যালরি খুব কম থাকে। নিয়মিত শালগম খাওয়ার কিছু কারণ সম্পর্কে জেনে নিই চলুন।........
বিস্তারিত

সাইনাস আর সাইনুসাইটিস, আসুন সহজে বুঝে নিই.

ডা: এস.এম.ছাদিক,ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী
স্বাভাবিক নিশ্বাস নিতে মনে হয় নাকে কি যেনো আটকে আছে,, আবার নাক দিয়ে পানিও পড়ে। গায়ে হালকা জ্বর ও আছে, আবার সাথে মাথা ব্যাথা। তিনি ডাক্তারের কাছে গেলেন, ডাক্তার বললেন, আপনার সাইনুসাইটিস হয়েছে,........
বিস্তারিত

গর্ভাবস্থায় কি চা-কফি পান করা যায়?

ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা) ,Consultant Sonologist
চা ও কফি আপনাদের অনেকেরই প্রছন্দের পানীয়। তাই গর্ভাবস্থায়ও খেতে চান, তাই না? এ ক্ষেত্রে আমাদের জানা উচিত এই পানীয় পান করা যাবে কি না, গেলে কতটুকু করা যাবে।......
বিস্তারিত

বাচ্চাদের ফল ও সবজি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলবেন কিভাবে?


পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন।বিএসসি (সম্মান), এমএসসি (প্রথম শ্রেণী) (ফলিত পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি)

মহিলাদের ইনফার্টিলিটি দূর করার ক্ষেত্রে ডিম্বাণুর গুণাগুণ কেন গুরুত্বপূর্ণ?


ডাঃ হাসনা হোসেন আখী,এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য),এমএস (অবস এন্ড গাইনী)

কিডনী সিস্ট কতটা ঝুঁকিপূর্ণ ?


ডাঃ মোহাম্মদ ইব্রাহিম আলী,এম.বি.এস,বিসিএস (স্বাস্থ্য) ,এমএস (ইউরোলজি)

শিশুদের ডায়েট কেমন হওয়া উচিত ?


নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,Bsc (Hon's) Msc (food & Nutrition)

লিভারের সুস্থতায় কি করবেন?


নুসরাত জাহান, ডায়েট কনসালটেন্ট

অনিয়মিত পিরিয়ডের কারণ , চিকিৎসা ও ঘরোয়া প্রতিকার


ডাঃ হাসনা হোসেন আখী