Royalbangla
রয়াল বাংলা ডেস্ক
রয়াল বাংলা ডেস্ক

অ্যাজমা সমস্যার ঘরোয়া সমাধান

asthma

অ্যাজমা প্রতিরোধে করনীয়
বাংলাদেশে অ্যাজমা রোগীর সংখ্যা প্রায় ৭০ লাখ, যার মধ্যে ৪০ লাখই শিশু। বায়ু দূষণ, ভেজাল খাদ্য, কীটনাশক প্রয়োগ সহ নানা ধরনের কারণে এ রোগীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। চমকে যাওয়ার মত ব্যাপার হলো , ওষুধ সেবনে জরুরী অ্যাজমা আক্রমন সাময়িক ভাবে রোধ করা গেলেও দীর্ঘমেয়াদে এ সব ওষুধ গ্রহণ করলে কোন কোন ক্ষেত্রে তা পুনরায় অ্যাজমা রোগের সৃষ্টি করে। এছাড়াও অ্যাজমা রোগের ওষুধের অনেকগুলো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে; যেমন, মানসিক অস্থিরতা, ব্রোণ-ফুস্কুড়ি, শারীরিক বৃদ্ধি রোধ, ওজন বৃদ্ধি এবং নানা ধরনের এলার্জি এর প্রভাবও দেখা দেয়। অ্যাজমা চিকিৎসায় তাই বাড়িতে বানানো পথ্য বেশ কার্যকরী ও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মুক্ত। সেগুলো হলো-

১। লেবুঃ
* অ্যাজমা আক্রান্ত ব্যক্তির সাধারণত ভিটামিন সি এর ঘাটতি থাকে , লেবুতে প্রচুর ভিটামিন সি ও আন্টিওক্সিডেন্ট থাকে যা জরুরী অ্যাজমা আক্রমন প্রতিরোধ করে। * একটি লেবুর অর্ধেক রস পানিতে দিয়ে পরিমান মত চিনি মিশিয়ে শরবত করে নিয়মিত খেলে অনেক উপকার পাওয়া যায়।

২। মধুঃ
* অ্যাজমার প্রাকৃতিক ওষুধ হিসেবে মধু ভীষণ কার্যকরী। মধুর ঘ্রান নিলেই অনেকের অ্যাজমা লক্ষণ প্রশমিত হয়। * এক গ্লাস পানিতে, এক চামচ মধু মিশিয়ে রোজ সকালে খাওয়া যেতে পারে। * রাত্রে ঘুমানোর আগে এ চামচ মধু খাওয়াও উপকারী।
৩। আদাঃ
* আদা অ্যাজমা সহ সকল ভাইরাস জনিত রোগের প্রতিরোধে কাজ করে। এটি শ্বসনযন্ত্রের কোষ গুলোকে মুক্ত ও আরামপ্রদ অবস্থায় নিয়ে যায় যা শ্বাস চলাচলে সাহায্য করে দ্রুত। * আদা বেটে ২ কাপ জলের সঙ্গে মিশিয়ে রাতে ঘুমানোর আগে খাওয়া যায় নিয়মিত। * ছোট ছোট করে কেটে পানিতে ফুটিয়ে, পানি ঠান্ডা হলে তা পান করা যেতে পারে। * কাঁচা আদা লবন দিয়ে চিবিয়ে খেলেও উপকার পাওয়া যায়।
৪। রসুনঃ
* প্রাথমিক অবস্থায় অ্যাজমা সম্পূর্ণ নিরাময় হতে পারে নিয়মিত রসুন সেবনে। * ২/৩ টি রসুনের কোয়া অর্ধেক কাপ দুধের সঙ্গে মিশিয়ে ফুটাতে হবে। তা ঠান্ডা হলে খাওয়া যায়, যা এক্ষেত্রে দারুন কার্যকরী। * গরম ভাতের সঙ্গে সেদ্ধ করেও খাওয়া যেতে পারে।
৫। কফিঃ
কফি পানের অনেক উপকারিতা রয়েছে। * নিয়মিত কফি পান অ্যাজমা প্রতিরোধ করে।
* শ্বাসযন্ত্রকে সতেজ রাখে যা নিশ্বাসের জড়তা রোধ করে।
* তবে দিনে ৩ কাপের বেশি খাওয়া উচিত নয়।
৬। পেয়াজঃ
* কাঁচা পেয়াজ চিবিয়ে খেলে তাৎক্ষনিক অ্যাজমা আক্রমন থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
* পেঁয়াজের গন্ধজনিত সমস্যা থাকলে সেদ্ধ করে খেলেও উপকার মেলে।
৭। সরিষার তেলঃ
* অ্যাজমা আক্রমনে দ্রুত সরিষার তেল মালিশ করলে উপশম হয়।
* সরিষার তেল গরম করে তাপমাত্রা সহনীয় পর্যায়ে আসলে বুকে ঘন ঘন মালিশ করতে হয়। এতে শ্বাসপ্রশ্বাস স্বাভাবিক হয়।
৮। হলুদঃ
* ১ চামচের ৪ ভাগের ১ ভাগ কাঁচা হলুদের গুড়ো এক গ্লাস পানির সঙ্গে মিশিয়ে সেবন করা যেতে পারে।
৯। ডালিমঃ
* এলার্জি জনিত সমস্যায় দারুন কার্যকরী ফল ডালিম।
* নিয়মিত ডালিমের শরবত খেলে অ্যাজমা রোগে উপকার পাওয়া যায়।
১০। গোলমরিচঃ
* ভীষণ ঝাঁঝালো গন্ধের মশলা হলেও গোলমরিচ এ রোগে দারুন প্রশমন করে।
* ১/৪ চামচ গোলমরিচ বেটে, অল্প পরিমানে আদা ও রসুনের সঙ্গে সেবন করলে তাৎক্ষনিক উপকার পাওয়া যায়। খুব সহজেই পাওয়া এই উপাদান গুলো থাকলে রোগের লক্ষণ প্রকাশ পাওয়ার সাথে সাথে ব্যবস্থা নেওয়া যায়। এ রোগের সরাসরি প্রতিকার না থাকলেও তা নিয়ন্ত্রনের মধ্যে রাখা যায়। ধুলাবালি মুক্ত যায়গায় থাকা, ধূমপান থেকে বিরত থাকা, বসবাসের স্থান সবসময় পরিস্কার পরিছন্ন রাখা, তেলে ভাজা খাবার পরিহার করা এসব অভ্যাস মেনে চললে অ্যাজমা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে royal_bangla@yahoo.com
পরবর্তী পোস্ট

মানসিক স্বাস্থ্য ভাল রাখতে শরীরচর্চা বা ব্যায়াম কতটা দরকারি?


১০ দিনে ৫ কেজি ওজন কমান!এরকম ডায়েট প্ল্যান কতটা বাস্তবসম্মত?

পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী
ক্র্যাশ ডায়েট
ওজনটা তো এক দিনে বাড়েনি, তাহলে কমানোর বেলায় এতো তাড়াহুড়া কেন? তাড়াহুড়ার ফল কখনই ভালো হয় না, অথচ শরীর বা স্বাস্থ্য নিয়ে তাড়াহুড়া করার আগে আমরা একবারও ভাবি না। .......
বিস্তারিত

হরমোন ও অতিরিক্ত ওজন নিয়ে কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

Dr.Md.Mazharul Huq Tanim
Hormon
হরমোনের কারনে কি ওজন বাড়তে পারে? থাইরয়েড হরমোন শরীরে কম থাকলে ওজন বেড়ে যেতে পারে,খাবার কম খেলেও! আরো কিছু হরমোনের কম/ বেশীর জন্য ওজন বাড়তে পারে। ......
বিস্তারিত

মানসিক রোগ-মানসিক সুস্থতা: কিছু ভ্রান্ত ধারণা এবং আমাদের করণীয়

ডাঃ ফাতেমা জোহরা
মানসিক-রোগ
মানসিক রোগ ও মানসিক সুস্থতায় কাউন্সিলিং ও সচেতনতা । বিশ্বের বিভিন্ন জায়গার লক্ষ লক্ষ লোক মানসিক রোগে আক্রান্ত হয় আর এটা তাদের প্রিয়জনদের জীবনের ওপর প্রভাব ফেলে। প্রতি চার জনের মধ্যে এক জন এর দ্বারা আক্রান্ত হবে ।বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা এই অসুস্থতার পিছনে একটা বড়ো কারণ হল অবসাদ। স্কিৎজোফ্রেনিয়া এবং বাইপোলার ডিসঅর্ডার হল মানসিক রোগের মধ্যে অন্যতম। .....
বিস্তারিত

মিষ্টি কুমড়ার পুষ্টিগুণ

Nutritionist Iqbal Hossain
কুমড়া
ভিটামিন এ সমৃদ্ধ খাবারের তালিকায় প্রথম দিকেই রয়েছে মিষ্টি কুমড়া।এ সবজিতে ভিটামিন-এ, বি-কমপ্লেক্স, সি, ই, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, আয়রন, জিংক, ফ্লেভনয়েড পলি-ফেনলিক উপাদান সমূহ ছাড়াও দেহের নানারকমের পুষ্টির যোগান দিয়ে থাকে। ভিটামিন-এ উপাদান থাকে যা চোখের কর্নিয়াকে সুরক্ষিত রাখতে সহায়তা করে।.......
বিস্তারিত
Piles

পাইলসের পৌরাণিক ইতিহাস


Dr Md Ashek Mahmud Ferdaus.
তেল

কোন তেল খাবেন?


Nutritionist Jayoti
dal

ডালে কি শর্করা থাকে ?


Dietitian Farzana
obesity_bmi

স্থূলতা (Obesity) কি? কিভাবে স্থূলতা রোধ করা যায় ?


Nutritionist Sadiya Smreety
Omega 3

ওমেগা-3 ফ‌্যাটি এসিড কেন প্রয়োজন ?


Nusrat Jahan
Benefit of Peel

খোসা কেন খাবেন?


Nutritionist Jayoti

কিটো ডায়েট না নরমাল ডায়েট?
1
টমেটোর গুণাগুণ
2
ফুলকপির পুষ্টিগুণ
3