loading...









loading...

Royalbangla
ডা. ফাতেমা জোহরা
ডা. ফাতেমা জোহরা

আপনি জানেন কি? অতিরিক্ত রাগ কিভাবে আপনার ক্ষতি করছে ?

মানসিক স্বাস্থ্য

রাগ একটি তীব্র আবেগ যা মানসিকভাবে একটি মানুষকে যন্ত্রণা দিতে পারে বা ক্ষতি করতে পারে। অনিয়ন্ত্রিত রাগ নেতিবাচকভাবে ব্যক্তিগত বা সামাজিক প্রভাব ফেলতে পারে।একজন রাগান্বিত ব্যক্তি তার উদ্দেশ্যমূলকতা, সহানুভূতি, বিচক্ষণতা বা চিন্তাশীলতা হারাতে পারে এবং নিজের বা অন্যের ক্ষতি করতে পারে সেইসাথে তার কাজের উৎপাদনশীলতা কমিয়ে দিতে পারে।

ছোটবেলা থেকেই মানসিক সমস্যা, যেমন ব্যক্তিত্বের ত্রুটি, বিষণ্নতা, উদ্বিগ্নতা , মিথ্যা বলা, বুদ্ধি প্রতিবন্ধকতা, কনডাক্ট ডিসঅর্ডার হলে মানসিক এই ভয়ংকর রোগ রাগের উপসর্গ হয়। এ ছাড়া খুঁতখুঁতে স্বভাব, হীনমন্যতাবোধ, অতিরিক্ত কর্তৃত্বপরায়ণ মনোভাব, সবকিছুতে অতিরিক্ত নিয়ন্ত্রণ, ব্যর্থতা মেনে না নেয়ার মনোভাব ইত্যাদি বৈশিষ্ট্যের মানুষের মধ্যে অল্পতেই রেগে যাওয়ার প্রবণতা বেশি।

সাধারণত, যারা রাগ করেন তারা উত্তেজনাকে পশ্রয় দেয় এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই উস্কানিগুলি রাগের অভিজ্ঞতার সাথে সাথেই ঘটে।রাগের প্রকাশ ব্যক্তি বা সংস্থার জন্য নেতিবাচক ফলাফলও পেতে পারে যেমন উৎপাদনশীলতা হ্রাস এবং কাজের চাপ বৃদ্ধি।শুধু তাই নয়, অতিরিক্ত রাগ কমিয়ে দিতে পারে দৈনন্দিন জীবনযাপনের স্বাভাবিক দক্ষতা এবং শেষে ঘটতে থাকে মনুষ্যত্বের অবক্ষয়।

রাগ বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই মানসিক দুরাবস্থার একটি বহিঃপ্রকাশ। ব্যক্তির অনিয়ন্ত্রিত রাগ মূলত পরিবেশ থেকেই আসে।কাজের ক্ষেত্রে নানামুখী চাপ ভালভাবে মোকাবেলা করতে না পারা, অন্যের কাছে সঠিকভাবে প্রকাশ করতে না পারা এইসব ব্যর্থতার দায় ব্যক্তি অনেক সময় কাছের মানুষের ঘাড়ে চাপিয়ে দেয়। অনেক কাজ একসঙ্গে এসে গেলে অথবা অল্প সময়ের মধ্যে অনেক কাজ শেষ করতে গিয়ে সেসব যদি ঠিকমত না হয়, তাহলে অনেকের মধ্যে টেনশন বা হতাশা জমতে জমতে রাগ তীব্র আকার ধারণ করে থাকে।

কর্মক্ষেত্রে ক্ষোভের সাধারণ কারণগুলির মধ্যে রয়েছে: সাধারণ হয়রানি, যৌন হোক বা অন্য কোনও রূপ, একজনের উপর অন্য একজন কর্মচারীর পক্ষে পক্ষপাতিত্ব,কোনও প্রস্তাব বা প্রকল্পের প্রত্যাখ্যান,কর্মী বা ক্লায়েন্টদের সামনে কর্মীদের সমালোচনা, কর্মক্ষেত্রের পরিবেশকে ঝামেলাদায়ক করা, অপ্রতুল প্রশিক্ষণ,দলের কাজের অভাব, কর্মীদের উপর অযৌক্তিক দাবি, প্রতিশ্রুতি না রাখা, মালিক বা পরিচালকের পক্ষ থেকে নমনীয়তার অভাব।

অব্যাহত ক্রমাগত রাগ স্ট্রেস বাড়িয়ে দেয় এবং শরীরের বিভিন্ন ব্যবস্থার ক্ষতি করতে পারে।কিছুটা স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী স্বাস্থ্য সমস্যা যা নিয়ন্ত্রণহীন রাগের সাথে যুক্ত হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে: মাথাব্যথা, হজমের সমস্যা,পেটে ব্যথা,অনিদ্রা,উদ্বেগ বৃদ্ধি, বিষণ্ণতা, উচ্চ্ রক্তচাপ , ত্বকের সমস্যা যেমন একজিমা, হৃদপিন্ডে হঠাৎ আক্রমণ,স্ট্রোক।এসব অসুস্থতাই কাজের উৎপাদনশীলতা কমিয়ে দেয়।

কিছু লোকের রাগের উপর খুব কম নিয়ন্ত্রণ থাকে এবং রাগের জন্য কর্মক্ষেত্রে ধ্বংসাত্মক আচরণ করে। রাগ শারীরিক নির্যাতন বা সহিংসতার কারণ হতে পারে।

যে ব্যক্তি তাদের মেজাজ নিয়ন্ত্রণ করে না সে পরিবার এবং বন্ধুদের থেকে নিজেকে আলাদা করতে পারে। কিছু লোক যারা রেগে যায় তারা স্ব-সম্মান কম থাকে এবং তাদের রাগকে অন্যদের কৌশল ও শক্তিশালী করার উপায় হিসাবে ব্যবহার করে।

যে সমস্ত লোকেরা স্ট্রেসে থাকে তাদের রাগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। বিশ্বব্যাপী প্রচুর গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে নিয়মিত অনুশীলন করে মেজাজ ভাল করতে পারে এবং চাপের মাত্রা হ্রাস করতে পারে। এটি হতে পারে কারণ শারীরিক পরিশ্রম স্ট্রেস কেমিক্যালগুলিকে কমিয়ে দেয় এবং এটি মস্তিষ্কে এন্ডোরফিনস এবং ক্যাটোলমিনাসহ মেজাজ-নিয়ন্ত্রিত নিউরোট্রান্সমিটারগুলির উত্পাদনকেও বাড়ায়।

স্বাস্থ্যকর উপায়ে কীভাবে আপনার ক্ষোভ প্রকাশ করবেন সে সম্পর্কে পরামর্শগুলির মধ্যে রয়েছে:

১. যদি আপনি নিয়ন্ত্রণের বাইরে নিজেকে অনুভব করেন তবে শীতল হওয়া অবধি পরিস্থিতি থেকে দূরে চলে যান।

২. আবেগকে স্বাভাবিক এবং জীবনের অংশ হিসাবে স্বীকৃতি দিন এবং গ্রহণ করুন।

৩. কর্মক্ষেত্রের ক্রোধের লক্ষণগুলি সনাক্ত করতে শিখুন এবং হতাশা এবং উদ্বেগ প্রকাশ করার জন্য কর্মীদের গঠনমূলক সুযোগগুলি সরবরাহ করার চেষ্টা করুন।কর্মক্ষেত্রের বৈষম্য বা অন্যথায় পেশাদারি আচরণের অভিযোগে কোনও কর্মীর মুখোমুখি হওয়ার আগে আপনার কাছে সমস্ত তথ্য রয়েছে তা নিশ্চিত করুন।

 অতিরিক্ত রাগ উৎপাদনশীলতা কমায়

৪. সমস্যাটি সনাক্ত করার পরে, পরিস্থিতি কীভাবে প্রতিকার করা যায় তার জন্য বিভিন্ন কৌশল নিয়ে আসার কথা বিবেচনা করুন।

৫. শারীরিক কিছু করুন যেমন হালকা ব্যায়াম বা খেলাধুলা করা,মেডিটেশন করুন, শ্বাস প্রশ্বাসের ব্যায়াম করুন।

৬. নিজেকে ভালোবাসতে শেখা, ভালো রাখতে চেষ্টা করা, গান শোনা, বই পড়া, পছন্দের কাজগুলো করা।

৭. বন্ধুবান্ধব এবং সামাজিক মেলামেশা বাড়ানো, নিয়মিত দেশ-বিদেশ ঘোরা সর্বোপরি নিজের জন্য প্রতিদিনই কিছুটা সময় ব্যয় করা যাতে করে মানসিক ভারসাম্য বজায় থাকে।

৮. একজন ব্যক্তি কাজের পরে একটি বারে যা বলে তা আমরা পরিবর্তন করব না, তবে কর্মক্ষেত্রে সে কীভাবে তার কাজ চালায় তা আমরা প্রভাবিত করতে পারি।

৯. তাৎক্ষণাৎ প্রতিক্রিয়া দেখানো থেকে বিরত থাকতে চেষ্টা করতে হবে, রেগে গেলে সঙ্গে সঙ্গে এর প্রতিক্রিয়া না দেখিয়ে নিজের কাছে কিছু সময় নিতে হবে। এ সময়ক্ষেপণের ফলে উত্তেজনা বা রাগের তীব্রতা কমার সম্ভাবনা থাকবে। ফলে রাগান্বিত অবস্থায় যেমন ধ্বংসাত্মক প্রতিক্রিয়া হয়, রাগ কমে যাওয়ার পরে সঠিকভাবে মনোভাব অন্যের কাছে পৌঁছাতে পারা সম্ভব।

১০. আপনি কেমন অনুভব করছেন সে সম্পর্কে আপনার বিশ্বস্ত ব্যক্তির সাথে কথা বলুন।প্রয়োজন হলে মনোরোগ বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ নিন ও চিকিৎসা করুন।ওষুধ বা কাউংসিলিং যেতাই লাগুক না কেন সঠিক সময়ে সঠিক চিকিৎসা নিলে রাগ নিয়ন্ত্রণে এনে সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবন-্যাপণ করা সম্ভব। এর ফলে কাজে উতপাদনশীলতাও বাড়ানো ও সম্ভব।

১১. যদি ব্যক্তিটি হিংস্র বা আপত্তিজনক হয় তবে সরাসরি তাদের কাছে না যাওয়া ভাল। আপনি যদি সুরক্ষিত বোধ করেন, তবে যুক্তিটির কোনও সমাধান খুঁজতে তারা রাজি আছে কিনা তা দেখতে আপনি ফোনে তাদের সাথে কথা বলতে পারেন। কাউকে আপনার সাথে থাকার জন্য জিজ্ঞাসা করা, আপনি কল করার সময় এবং তারপরে আপনাকে সহায়তা দেওয়ার জন্য সহায়ক হতে পারে।

১২. কিছু লোক কখনই কীভাবে যথাযথভাবে যোগাযোগ করবেন তা কখনই শিখে নি তাই তাদের ক্ষেত্রে প্রত্যাশাগুলি নির্ধারণ করা, পছন্দসই আচরণগুলি প্রদর্শন করা এবং সংবেদনশীলতা বেশি হলে অন্যদের সাথে কীভাবে যোগাযোগ করবেন সে সম্পর্কে কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া আমাদের দায়িত্ব। এর মধ্যে সংবেদনশীল বুদ্ধিমত্তার কিছু বুনিয়াদি শেখা জড়িত ।

আপনি সাধারণত যেভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তা সংশোধন করতে কিছুটা সময় নিতে পারেন। পরামর্শগুলির মধ্যে রয়েছে:

১. কীভাবে এবং কেন আপনি পাগল হন তা বোঝার জন্য এবং আপনার ক্রোধকে ডায়েরিতে লিখে রাখুন।

২. দৃঢতা প্রশিক্ষণ, বা বিরোধের কৌশল সম্পর্কে শেখার বিবেচনা করুন।

৩. শিথিলকরণ কৌশল, যেমন ধ্যান বা যোগব্যায়াম শিখুন ।

৪. ব্যায়াম নিয়মিত করুন।

৫. যদি আপনার অতীতে ঘটে যাওয়া ইভেন্টগুলি নিয়ে এখনও রাগ অনুভব করেন তবে একজন মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞকে দেখান।

ডা. ফাতেমা জোহরা
MBBS(DU), MD Psychiatry (BSMMU), FMD(USTC), DHMS(BD)
মনোরোগ, যৌনরোগ ও মাদকাসক্তি নিরাময় বিশেষজ্ঞ
সহকারী অধ্যাপক
মানসিক রোগ বিভাগ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজ
লেখকের সাথে যোগাযোগ করতে নিচের ফেসবুক পেইজে ক্লিক করুন
www.facebook.com/Dr-Fatema-Zohra-Psychiatrist-Specialist-in-Family-Medicine-293734764582169/

  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে [email protected]
পরবর্তী পোস্ট

টক দই নাকি মিষ্টি দই?


ব্রণ সমস‌্যার ঘরোয়া সমাধান- সহজ এবং শতভাগ কার্যকরী

রয়াল বাংলা ডেস্ক
মোবাইল ফোনের রেডিয়েশন আপনার কিভাবে ক্ষতি করছে? জেনে নিন।

রয়াল বাংলা ডেস্ক
পাইলস কি, কেন এবং কিভাবে হয়?

Colorectal Care Dr. Md Ashek Mahmud Ferdaus
কোষ্ঠকাঠিন্য কি, এর জটিলতা ও সমাধান

Colorectal Care Dr. Md Ashek Mahmud Ferdaus
ফুড সাপ্লিমেন্ট কি ? কেন নেবেন?

পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী
ইসবগুলের ভুসি খাওয়ার উপকারিতা ও নিয়ম

Colorectal Care Dr. Md Ashek Mahmud Ferdaus
পুরুষের বন্ধ্যাত্বের সমস্যা কেন বাড়ছে ?

ডাঃ আয়েশা রাইসুল
খারাপ কোলেস্টেরল কি ? কিভাবে কমানো যায় ?

পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা
ভাতের আসক্তি কমানোর উপায় কি?

ডায়েটিশিয়ান ফারজানা
প্রি-ডায়াবেটিস বা ডায়াবেটিস এর ঝুকি

Nutritionist Iqbal Hossain
ফর্সা হতে চান?

পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা
ভাত কতটা ওজন বাড়ায়?

পুষ্টিবিদ তাহমিনা আক্তার
গ্রিন টি বা সবুজ চা কেন খাবেন ?

Nusrat Jahan
এলার্জি কিভাবে কমাবেন?

Dietitian Shirajam Munira
গ্যাসের সমস্যা ওষুধ খেয়ে না কমিয়ে প্রাকৃতিক উপায়ে কমান

ডায়েট কনসালটেন্ট নুসরাত জাহান
ধাতু রোগ কি? কেন কিভাবে হয়? কী করণীয়

royalbangla desk
মাইগ্রেন থেকে দূরে থাকবেন কিভাবে?

নুসরাত জাহান, ডায়েট কনসালটেন্ট
চুল কি একটু বেশি পড়ছে? পর্ব-১

পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী
কিটো ডায়েটের নেগেটিভ দিক!

ডাঃ আয়েশা রাইসুল (গভঃ রেজিঃ H-১৫৯৮)
স্তনের চাকা এবং ক্যান্সার আতংক

ডাঃ লায়লা শিরিন,সহযোগী অধ্যাপক, ক্যান্সার সার্জারী, জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউট ও হাসপাতাল

হিমোফিলিয়া: রক্ত জমাট বাঁধা জনিত রোগ

ডাঃ গুলজার হোসেন ,বিশেষজ্ঞ হেমাটোলজিস্ট
হিমোফিলিয়া একটি বংশানুক্রমিক জিনগত রোগ। মানবদেহে রক্ত জমাট বাঁধার জন্য কিছু বিশেষ ব্যবস্থা আছে। রক্ত জমাট বাঁধার প্রক্রিয়ায় কাজ করে রক্তের অণুচক্রিকা এবং বেশ কয়েকটি ফ্যাক্টর (বিষয়)। ......
বিস্তারিত

মানসিক স্বাস্থ্য ভাল রাখতে শরীরচর্চা বা ব্যায়াম কতটা দরকারি?

Dr. Fatema Zohra
আপনি কি জানেন যে ব্যায়াম আপনাকে মানসিকভাবে সুস্থ রাখতে সাহায্য করতে পারে? গবেষণা দেখায় যে যারা নিয়মিত ব্যায়াম করে তারা মানসিক স্বাস্থ্য সচেতন এবং তাদের মানসিক অসুস্থতা নিম্ন হারে থাকে।ব্যায়াম গ্রহণ মানসিক অসুস্থতার ঝুঁকি কমাতে সহায়ক হয়...
বিস্তারিত

লিভারের সুস্থতায় কি করবেন ? কি খাবেন?

নুসরাত জাহান, ডায়েট কনসালটেন্ট
স্ট্রেস থাকলে খাবেন না- বোর হলে, এনার্জি কম লাগলে কী করি আমরা? অনেকেই এই সময় খাবার খেয়ে মুড ঠিক করতে চান। চিকিত্সকরা জানাচ্ছেন লিভার সুস্থ রাখতে স্ট্রেসের সময় খাবার ছোঁবেন না।....
বিস্তারিত

হার্ট এটাক সম্পর্কে যেসব তথ্য সবার জানা দরকার

ডা: অনির্বাণ মোদক পূজন
বয়স, উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা, উচ্চ কোলেস্টোরলের সমস্যা, অতিরিক্ত মেদ, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস, মদ্যপান, মানসিক চাপ—এগুলি মূলত হার্ট অ্যাটাকের কারণ।.................
বিস্তারিত

জরায়ুর মুখে ক্যান্সার

ডাঃ হাসনা হোসেন আখী,এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য),এমএস (অবস এন্ড গাইনী)
একদিন বা একমাসে হঠাৎ করে জরায়ু-মুখে ক্যান্সার হয় না । জরায়ু মুখ আবরণীর কোষগুলোতে বিভিন্ন কারণে সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। এই পরিবর্তন ধীরে ধীরে ক্যান্সারের রূপ নেয় ।..........
বিস্তারিত

কম বয়সে হার্টের সমস্যা ও করণীয়

ডা: অনির্বাণ মোদক পূজন
হার্টের অসুখের সমস্যায় যে শুধু বয়স্করাই ভোগেন তা নয়। এখন হার্ট সমস্যা অল্প বয়সে ভালোই বিপজ্জনক। হার্টের সমস্যা আজকাল বয়সের হিসাব করে আসছে না। মাঝরাতে হঠাৎ বুকে ব্যথা।........
বিস্তারিত

মাইগ্রেন থেকে দূরে থাকবেন কিভাবে?

নুসরাত জাহান, ডায়েট কনসালটেন্ট
মাইগ্রেন এক বিশেষ ধরনের মাথাব্যথা। মাথার যে কোনও এক পাশ থেকে শুরু হয়ে তা মারাত্মক কষ্টকর হয়ে ওঠে। তাই একে ‘আধ-কপালি ’ ব্যথাও বলা হয়ে থাকে। মাইগ্রেনের যন্ত্রণা অত্যন্ত কষ্টদায়ক এবং দীর্ঘস্থায়ী। যাঁদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে, তীব্র মাথা যন্ত্রণার পাশাপাশি তাঁদের বমি বমি ভাব, শরীরে এবং মুখে অস্বস্তিভাব দেখা দিতে পারে। .........
বিস্তারিত

কিভাবে ধূমপান ছাড়বেন?

জিয়ানুর কবির
যারা ধূমপান করেন তারা প্রায়ই ধূমপান ছাড়তে চান কিন্তু ধূমপান ত্যাগ করা খুবই কঠিন। এক গবেষণায় দেখা যায়, বাংলাদেশের ৬৬ শতাংশ ধূমপায়ীর ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার ইচ্ছা আছে। ধূমপান ছাড়ার তেমন কোন উপায় না থাকলেও গবেষণায় দেখা যায় যে, যারা নিয়মিত সাইকোলজিক্যাল থেরাপি নিয়েছেন তাদের ধূমপান ছাড়ার ক্ষেত্রে বেশ সফলতা পেয়েছেন। ....
বিস্তারিত

গ্যাসের সমস্যা ওষুধ খেয়ে না কমিয়ে প্রাকৃতিক উপায়ে কমান

ডায়েট কনসালটেন্ট নুসরাত জাহান
গ্যাসের সমস্যায় আমরা কম বেশি সকলেই ভুগি। বেশিক্ষণ কিছু না খেয়ে থাকলেই গ্যাস হয়ে যায় আমাদের পেটে। তার থেকে শুরু হয় বুকে পেটে ব্যথা, মাথা ধরা, গা বমি ভাব ইত্যাদি। অনেকের আবার গ্যাসের সমস্যা থেকে গ্যাস্টিকও হয়ে যেতে পারে।...
বিস্তারিত

এলার্জি কিভাবে কমাবেন?

Dietitian Shirajam Munira
একজন ভালো মানুষ। হঠাৎ তার প্রচন্ড চুলকানি, চাকা চাকা লাল ফুসকুড়ি। এমন সমস্যা প্রকৃতপক্ষে ছোটো মনে হলেও এর ভয়াবহতা আপনাকে মৃত্যুর দিকেও ঠেলে দিতে পারে। আজকের টপিকস এলার্জি নিয়ে। .....
বিস্তারিত

গ্রিন টি বা সবুজ চা কেন খাবেন ?

Nusrat Jahan
গ্রিন টি হল পৃথিবীতে পরিচিত প্রাচীনতম ভেষজ চা, যা জনপ্রিয়তা পেয়েছে চীনে আবিষ্কারের প্রায় ৪০০০ বছরেরও বেশি সময় পরে।শরীরে চাঙ্গাভাব নিয়ে আসতে একটা স্বাস্থ্যকর পানীয় হিসেবে গ্রিন টি প্রাধান্য পাওয়া উচিত।.....
বিস্তারিত

ভাত কতটা ওজন বাড়ায়?

পুষ্টিবিদ তাহমিনা আক্তার
কেবল মাত্র ভাতই ওজন বাড়ায়। আপনি ভাত খাচ্ছেন না অথচ ভাঁপা পিঠা, পায়েস, ফুচকা, নান-গ্রিল, বিস্কুট, সিঙ্গারা ইত্যাদি খাচ্ছেন তো লাভ কি হল? বরং আপনি ভাতের চেয়ে বেশি ক্যালরি খেয়ে নিচ্ছেন। আমরা বাঙালি রা দেখা যায় ভাত খেয়ে অভ্যস্ত, তাই ভাত না খেয়ে ডায়েট করলে দেখা যায় অন্য খাবারের প্রতি অাগ্রহটা বেড়ে যায়।.....
বিস্তারিত

দাঁতের ডাক্তারের কাছে যেতে ভীতি এবং করণীয়


ডা: এস.এম.ছাদিক,ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী

অ্যামনিওটিক ফ্লুইড কি এবং এর প্রয়োজনীয়তা কি?


ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা),Consultant Sonologist

শালগম এর উপকারীতা


পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন,পুষ্টি কর্মকর্তা

মৌসুমি ডিপ্রেশন মোকাবিলায় কতখানি প্রস্তুত!!


জিয়ানুর কবির,ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিষ্ট

No Junk Food for Child- বাচ্চাকে যে কারণে জাঙ্কফুড খাওয়া বারণ


নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,

এক্টোপিক গর্ভাবস্থা - কারণ, লক্ষণ, এবং চিকিত্সা


ডাঃ হাসনা হোসেন আখী,এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য),এমএস (অবস এন্ড গাইনী)

ফাস্টফুডকে না বলুন


পুষ্টিবিদ মুনিয়া মৌরিন মুমু

নিয়মিত সাঁতার কাটার উপকারীতা


ডা: অনির্বাণ মোদক পূজন,হৃদরোগ, বাতজ্বর ও উচ্চ রক্তচাপ রোগ বিশেষজ্ঞ

মিসড গর্ভপাত (missed abortion / missed miscarraige)


ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা) ,Consultant Sonologist

অস্বস্তিকর পেটের পীড়া- পেটফাঁপা থেকে দূরে থাকার উপায়


পুষ্টিবিদ মুনিয়া মৌরিন মুমু,নিউট্রিশনিস্ট

ভালোবাসার মনস্তত্ত্ব


জিয়ানুর কবির, ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিষ্ট

বিশেষ শিশু পর্ব-১


নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,Bsc (Hon's) Msc (food & Nutrition)

মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে আমাদের করণীয়


ডা. ফাতেমা জোহরা , মনোরোগ, যৌনরোগ ও মাদকাসক্তি নিরাময় বিশেষজ্ঞ

এত গ্যাস্ট্রিক আলসার এর রোগী,সমাধান কি???


ডা: অনির্বাণ মোদক পূজন,হৃদরোগ, বাতজ্বর ও উচ্চ রক্তচাপ রোগ বিশেষজ্ঞ

ছোট বাচ্চাদের দাঁতের সমস্যা Nursing bottle caries (দাঁতে পোকা) হলে করণীয়


ডা: এস.এম.ছাদিক, ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী

থ্রেটেন্ড গর্ভপাত (Threatened abortion)


ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা) ,Consultant Sonologist

কোমর ব্যথায় করণীয়


ডা: অনির্বাণ মোদক পূজন,হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ও মেডিসিন চিকিৎসক

বিষন্নতার চেনা গল্প: যেসব কারণে বিষন্নতাকে অবহেলা করা উচিত নয়


ডা. ফাতেমা জোহরা,মনোরোগ, যৌনরোগ ও মাদকাসক্তি নিরাময় বিশেষজ্ঞ

গর্ভধারণ এবং স্তন ক্যান্সার পর্ব- ২


ডাঃ লায়লা শিরিন,অধ্যাপক,জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউট ও হাসপাতাল

মিসড গর্ভপাত (missed abortion / missed miscarraige)


ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা) ,Consultant Sonologist

অস্বস্তিকর পেটের পীড়া- পেটফাঁপা থেকে দূরে থাকার উপায়


পুষ্টিবিদ মুনিয়া মৌরিন মুমু,নিউট্রিশনিস্ট

ভালোবাসার মনস্তত্ত্ব


জিয়ানুর কবির, ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিষ্ট

বিশেষ শিশু পর্ব-১


নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,Bsc (Hon's) Msc (food & Nutrition)

মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে আমাদের করণীয়


ডা. ফাতেমা জোহরা , মনোরোগ, যৌনরোগ ও মাদকাসক্তি নিরাময় বিশেষজ্ঞ