Royalbangla
পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা
পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা

মানসিক চাপ থেকে মুক্তিঃ ডায়েট ব‌্যবস্থাপনা ও করণীয়

মানসিক চাপ

  1. এখনকার ১০০ জন মানুষের মধ্যে ৯৯ জন মানুষ স্ট্রেসে ভোগে। মজার ব্যাপার এই বিষয়টিকে মানুষ একেবারেই অবহেলা করেন। অথচ এর ভয়াবহতার একটি শব্দ আমার কাছে আছে, সেটি হলো – “Stress is the mother of disease.

    বৈজ্ঞানিক গবেষণা ও আমার অভিজ্ঞতা তাই বলে। তাই এতো বড়ো সমস্যাকে অবহেলা না করে চলুন জেনে নেই কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করবেন। আমি একজন ডায়েটিশিয়ান অবশ্যই খাবারের বিষয় সর্বপ্রথম তুলে ধরবো। কারণ, Eating Disorder কিন্তু এই স্ট্রেস থেকেই হয়ে থাকে।

    দুধ

    দুধ ভিটামিন-ডি এর একটি দুর্দান্ত উৎস যা সুখ বাড়িয়ে তোলে বলে মনে করা হয়। শিশুদের জন্য লন্ডনের ইউসিএল ইনস্টিটিউটের ৫০ বছরের গবেষণায় দেখা গেছে যে ভিটামিন-ডি কম থাকার কারণে পুরুষ ও মহিলাদের মধ্যে আতঙ্ক ও হতাশার ঝুঁকি বেশি কাজ করে। ভিটামিন-ডি পেতে হলেও দুধ নিয়ম করে গ্রহণ করুন।শোবার সময় স্ট্রেস বাস্টার হল উষ্ণ দুধ। এছাড়াও গবেষণা দেখায় যে, দুধের ক্যালসিয়াম উদ্বেগ এবং মেজাজকে ভালো রাখে। ডায়েটিশিয়ানরা সাধারণত স্কিম বা কম ফ্যাটযুক্ত দুধের পরামর্শ দেন। আজ থেকে আর দুধ বাদ দিয়েন না!

    বীজ
    ফ্ল্যাকসিড, কুমড়োর বীজ এবং সূর্যমুখী বীজ হল ম্যাগনেসিয়ামের দুর্দান্ত উৎস।ম্যাগনেসিয়াম হতাশা, অবসন্নতা এবং বিরক্তি দূর করতে সাহায্য করে। তাই এ খাবারগুলো নিয়মিতো রাখার চেষ্টা করবেন।

    কাজু বাদাম
    এক মুঠো কাজু বাদাম প্রতিদিনের জিংকের প্রস্তাবিত মানের ১৫% পূরণ করে।জিংক একটি প্রয়োজনীয় খনিজ যা স্ট্রেস কমাতে সহায়তা করে। গবেষকরা সনাক্ত করেছেন যে, স্ট্রেস যাদের আছে তাদের শরীরে জিংকের অভাব রয়েছে। দস্তা মুডকে প্রভাবিত করে শরীরের উপর প্রভাব ফেলে। জিংক এর একটি খুবই ভালো উৎস কাজু বাদাম। তাই এক মুঠো কাজু বাদাম খাবেন কিন্তু।

    ভিটামিন সি
    গবেষণায় দেখা গেছে যে, উচ্চ মাত্রার ভিটামিন-সি স্ট্রেসের মাত্রা কমাতে সহায়তা করে। পাকিস্তান জার্নাল অফ বায়োলজিকাল সায়েন্সে ২০১৫ সালের জানুয়ারী তে প্রকাশিত একটি ডাবল-ব্লাইন্ড স্টাডি জানিয়েছে যে, ভিটামিন-সি প্রতিদিন ৫০০ মিলিগ্রাম গ্রহণকারী অংশগ্রহণকারীদের স্ট্রেসের মাত্রা হ্রাস হয়েছে। পাকিস্তান জার্নাল অফ বায়োলজিকাল সায়েন্সে ২০১৬ সালের নভেম্বরে প্রকাশিত আরেকটি গবেষণায় এসেছে যে, ভিটামিন-সি হতাশার মাত্রা উল্লেখযোগ্য পরিমানে হ্রাস করে।লেবু, কমলা, সজনে পাতা, কাঁচামরিচ, আমলকি ইত্যাদি প্রতিদিন অবশ্যই খাবেন।হতাশা দূর করতে হবে তো!

    সবুজ শাকসবজি
    পিজা বার্গার লোভনীয়, তবে তার পরিবর্তে যদি আপনি সবুজ খাবার গ্রহণ করেন তবে হয়ে যাবেন স্ট্রেসবিহীন। একাডেমি অব নিউট্রিশন অ্যান্ড ডায়েটিক্স বলে – সবুজ শাক-সবজিতে ফোলেট থাকে, যা ডোপামিন তৈরি করে মস্তিষ্কে এক মজাদার রাসায়নিক উপাদান তৈরি করে, যেটি আপনাকে শান্ত রাখতে সহায়তা করবে।জার্নাল অফ এফেক্টিভ ডিসঅর্ডারগুলিতে করা একটি গবেষণায় দেখা গেছে যারা সবচেয়ে বেশি ফোলেট গ্রহণ করেন তাদের মধ্যে হতাশার লক্ষণগুলির ঝুঁকি কম থাকে। নিউজিল্যান্ডের ওটাগো ইউনিভার্সিটির আরেকটি গবেষণায় আবিষ্কার করা হয়েছে যে, কলেজ শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা সবুজ শাকসবজী গ্রহণ করে থাকে তারা অন্যদের চেয়ে শান্ত, সুখী এবং আরও শক্তিশালী বোধ করে।

    ডার্ক চকলেট
    অনেকর ধারণা চকলেট মানেই ক্ষতিকর।কিন্তু মানসিক চাপ কমানোর অসাধারণ খাবার হচ্ছে ডার্ক চকলেট।কিছু গবেষণায় পাওয়া গেছে, ডার্ক চকলেট খেলে ফিল-গুড ইফেক্ট বৃদ্ধি পায়, অর্থাৎ সুখের অনুভূতি বাড়ে। ২০১৭ সালের একটি গবেষণামতে, প্রতিদিন ২০ গ্রাম ডার্ক চকলেট খেলে হার্ট ও রক্তনালির স্বাস্থ্যের ওপর উপকারী প্রভাব পড়তে পরে।তাই পরিমান করে একটু ডার্ক চকলেট আপনার সুখের অনুভূতি বাড়াতে পারে। তবে এক্ষেত্রে যে চকোলেটে ৭০ শতাংশ অথবা তার বেশি কোকো থাকে, সেটাই বেছে নিন। তবে অতিরিক্ত চকলেট খাওয়া থেকে সতর্ক থাকতে হবে।

    দই
    আপনি যদি ঘন ঘন অ্যাংজাইটি বা উদ্বেগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন তবে আপনার দৈনিক ডায়েটে ইয়োগার্ট নিয়ে আসুন।মিষ্টিতে ভরপুর দই নয়।টক মিষ্টি দইতে বোঝানো হয়েছে।সাম্প্রতিক এক সমীক্ষার ফলাফল থেকে জানা যাচ্ছে, কেউ যদি টানা চার সপ্তাহ দিনে দুবার ইয়োগার্ট খায়, তার মস্তিষ্ক অনেক বেশি কাজ করে।তাই মন খারাপের দিনগুলতো একটু দই মুখে দিয়ে দিন।

    এছাড়াও –
    সঠিক ডায়েট অনুসরণ করে খান।
    ক্যাফিন এবং চিনি হ্রাস করুন।
    সিগারেট, অ্যালকোহল এবং অন্যান্য ড্রাগ এড়িয়ে চলুন।
    পর্যাপ্ত ঘুমান।
    কাজের বিরতি নিন।
    নিয়ম করে প্রতিদিন গভীর শ্বাস-প্রশ্বাস নিন।
    সমস্যার সমাধান খুঁজুন।
    নিজেকে বিরতি দিন।
    ইতিবাচক দিক যেকোনো পরিস্থিতিতে দেখুন। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি যানজটে আটকে থাকেন তবে একা সময় উপভোগ করুন।
    আপনাকে মানসিক চাপ দেয় এমন লোকদের এড়িয়ে চলুন।
    আপনাকে বিরক্ত করা বা ক্রস করতে পারে এমন বিষয়গুলি এড়িয়ে চলুন।
    আপনার সময় সঠিকভাবে পরিচালনা করুন এবং সামনের দিকের পরিকল্পনা করুন।
    সবশেষে বলবো সুখি হতে পয়সা লাগে না। আবার অসুখে পড়লে এই কথা উল্টে যায়।কারণ, তখন টাকা ছাড়া উপায় থাকেনা। আবার টাকা থাকলেও যে বাঁচবেন তারও কোনো গ্যারান্টি দিতে কেউ পারবেনা। তাই সাবধান থাকুন, ভালো থাকুন।

    লেখক
    পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা
    কনসালটেন্ট ডায়েটিশিয়ান
    ইবনেসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও কেয়ার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে royal_bangla@yahoo.com
পরবর্তী পোস্ট

রাইনোপ্লাস্টি (Rhinoplasty) নাকের সৌন্দর্য বর্ধনের সার্জারি।


.

সময় অসময়ে মন খারাপ থাকলে যা করনীয়


পুষ্টিবিদ জয়তী মুখার্জী
.

মানসিক রোগ-মানসিক সুস্থতা: কিছু ভ্রান্ত ধারণা এবং আমাদের করণীয়


ডাঃ ফাতেমা জোহরা
.

মানসিক চাপ থেকে মুক্তিঃ ডায়েট ব‌্যবস্থাপনা ও করণীয়


পুষ্টিবিদ সিরাজাম মুনিরা
.

মানসিক আঘাতে কি ঘটে: কিভাবে সামলাবেন ?


ডাঃ ফাতেমা জোহরা
.

মানসিক স্বাস্থ‌্য:মানসিকভাবে ভাল থাকার উপায়


ডাঃ ফাতেমা জোহরা
.

বাচ্চাকে আত্মবিশ্বাসী করে তোলার কিছু টিপস


নুসরাত জাহান, ডায়েট কনসালটেন্ট
.

আপনি কি ডিপ্রেশনে আক্রান্ত?


জিয়ানুর কবির,সাইকোথেরাপিস্ট
.

ডিপ্রেশনের সাইকোলজিক্যাল কারণ


জিয়ানুর কবির
.

মানসিক স্বাস্থ্য ভাল রাখতে শরীরচর্চা বা ব্যায়াম কতটা দরকারি?


Dr. Fatema Zohra
.

কিভাবে বুঝবেন আপনি উদ্বিগ্নতায় (Anxiety) আক্রান্ত?


জিয়ানুর কবির

গর্ভাবস্থায় ঝুকি

পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন,পুষ্টি কর্মকর্তা
প্রতিটি মেয়ের বুকের মাঝে লালিত স্বপ্নগুলোর মাঝে অন্যতম একটি স্বপ্ন হচ্ছে মা হওয়া। সুস্থ্য স্বাভাবিক মাতৃত্ব আমাদের সবার কাম্য। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু জটিলতা দেখা দেয় যা.....
বিস্তারিত

এনোমালি স্ক্যানে সমস্যা ধরা পড়লে করণীয় কি?

ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা),Consultant Sonologist
এনোমালি স্ক্যানের মাধ্যমে অধিকাংশ মেজর জন্মগত ত্রুটি ধরা পড়ার কথা যদি ভাল মেশিন ও দক্ষ সনোলজিস্ট দিয়ে করানো হয়। ধরুন কারো এনোমালি স্ক্যানের রিপোর্টে.....
বিস্তারিত

পুরুষ বন্ধ্যাত্ব, প্রয়োজন চিকিৎসার

ডাঃ হাসনা হোসেন আখী,এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য),এমএস (অবস এন্ড গাইনী)
কোভিড আবহে দীর্ঘদিন গৃহবন্দি থাকার সময় বিশেষজ্ঞরা মনে করেছিল যে সন্তান উৎপাদনের হার বৃদ্ধি পাবে । কিন্তু হিসাব অনুযায়ী দেশে সন্তানহীন দম্পতির সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে।....
বিস্তারিত

ডালিম বা বেদানায় কতখানি আয়রন?

ডাঃ গুলজার হোসেন ,বিশেষজ্ঞ হেমাটোলজিস্ট
বেদানার রঙ লাল দেখে অনেকেই ভাবেন রক্ত বুঝি এখানেই। বাস্তবতা হলো বেদানায় আয়রন আছে ঠিকই কিন্তু সেটা আয়রনের বেস্ট সোর্স নয়। একশ গ্রাম বেদানায় আয়রন থাকে ০.৩ মিলি গ্রাম।......
বিস্তারিত

সুস্থতায় নিয়মানুবর্তিতা: যেসব নিয়ম মেনে চললে দীর্ঘদিন সুস্থ থাকা যায়


পুষ্টিবিদ মুনিয়া মৌরিন মুমু

বাচ্চার আদর্শ খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলতে যা করা উচিত এবং যা করা উচিত নয়


নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,Bsc (Hon's) Msc (food & Nutrition)

ব্রেস্ট ফিডিং মায়েদের ডায়েট কেমন হওয়া উচিত?


নিউট্রিশনিস্ট সুমাইয়া সিরাজী,Bsc (Hon's) Msc (food & Nutrition)

লিম্ফোমাঃ রক্তের বিশেষ একপ্রকারের ক্যান্সার


ডাঃ গুলজার হোসেন ,বিশেষজ্ঞ হেমাটোলজিস্ট

রক্তের অসুখ পলিসাইথেমিয়া


ডাঃ গুলজার হোসেন ,বিশেষজ্ঞ হেমাটোলজিস্ট

ভ্যারিকোসিল কি? কাদের হয়? কি করণীয়?


ডাঃ মোঃ মাজেদুল ইসলাম,এমবিবিএস, এফসিপিএস (সার্জারি),জেনারেল, কোলোরেক্টাল এবং ল্যাপারোস্কোপিক সার্জন।