Royalbangla
নিউট্রিশনিস্ট সাদিয়া স্মৃতি
নিউট্রিশনিস্ট সাদিয়া স্মৃতি

প্রেগন্যন্সিতে বর্জনীয় খাবার অর্থাৎ যে খাবার গুলো গর্ভস্থ শিশুর জন্য বর্জন করতে হবে

গর্ভধারণ


  1. গর্ভাবস্থা নারী জীবনের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি সময়। এ সময় নিজের জন্য এবং গর্ভস্থ ভ্রূণের প্রপার গ্রোথ এর জন্য স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া প্রতিটি নারীর জন্য গুরুত্বপূর্ণ ।এসময় বাড়তি খাবার খাওয়া উচিত কিন্তু কিছু খাবার রয়েছে, যেগুলো গর্ভাবস্থায় না খাওয়া ই ভালো।
    এছাড়াও কিছু কিছু খাবার খাওয়া এতটাই ঝুঁকিপূর্ণ যে তাতে গর্ভপাত হওয়ার আশংকা থাকে। আমি আজ আপনাদের জন্য আলোচনা করব কি কি খাবার গর্ভাবস্থায় খাওয়া যাবে না এবং কেন!!!
  2. এক
    ডিম
    ডিম আমাদের সবার পছন্দের একটি খাবার।গর্ভবতী মায়েদের জন্য ডিম পুষ্টিকর একটি খাবার।কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে,প্রেগন্যান্ট মাকে ডিম বা ডিমের কুসুম পুরোপুরি সিদ্ধ করে খেতে হবে। আধা সিদ্ধ বা কাচা ডিম কোন অবস্থাতেই খাওয়া যাবে না।
  3. দুই
    কলিজা
    আমরা জানি যে,কলিজা বেশ স্বাস্থ্যকর খাবার। এতে ভিটামিন -এ পাওয়া যায়।তবে গর্ভের শিশুর জন্য এটি ক্ষতির কারণ হতে পারে। কলিজা খাওয়া যাবে তবে প্রতিদিন নয়,আর খেয়াল রাখতে হবে,পরিমান যেন খুব বেশি না হয়।
  4. তিন
    মধু
    গর্ভাবস্থায় মধু এভয়েড করা উচিত, কেননা- মধু বাচ্চাদের খাবারে বিষক্রিয়ারর সৃষ্টি করতে পারে। তাই,মায়েদের উচিত গর্ভাবস্থায় মধু তার খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে।
  5. চার
    আনারস
    আমরা অনেকেই হয়ত জানি, প্রেগন্যন্সিতে আনারস বা আনারসের জুস খাওয়া ঠিক নয় কেননা, আনারসে থাকে ব্রোমেলেইন নামক উপাদান,যা গর্ভপাত ঘটাতে পারে। তাই গর্ভাবস্থায় আনারস খাওয়া একদম উচিত নয়।
  6. পাঁচ
    পেঁপে
    আনারসের মত আর একটি খাবার যা প্রেগনেন্সিতে এভয়েড করা উচিত তা হলো পেঁপে।কাঁচা পেঁপেতে এক ধরনের ক্ষতিকর অ্যানজাইম থাকে,যা গর্ভপাতের কারণ হতে পারে। কিন্তু পাকা পেঁপে খাওয়া যেতে পারে ,তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন পেঁপেটি রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে পাকানো না হয়।
  7. ছয়
    সজনে ডাটা
    সজনে অনেকের পছন্দের খাবার। ভিটামিন, আয়রন ও পটাশিয়াম সমৃদ্ধ এই সবজিটি।কিন্তু আমরা জানিনা যে বিষয়টা তা হলো - সজনেতে থাকে আলফা সিটোসটেরল নামে এক ধরনের উপাদান যা গর্ভাবস্থায় গ্রহণ করা ক্ষতিকর। এটি গর্ভপাত ঘটাতে পারে।
    এছাড়াও,

  8. গর্ভাবস্থায় খাবার তালিকায় তাজা খাদ্য রাখতে চেষ্টা করুন।রেফ্রিজারেটরে সংরক্ষিত বা অতিরিক্ত গরম খাবার না খাওয়াই ভাল।

  9. কফি অথবা ক্যাফেইন যুক্ত পানীয় এবং অতিরিক্ত চা খাওয়া

  10. গভীর সমুদ্রের মাছ বা তেল/চর্বি যুক্ত মাছ

  11. কাঁচা ডিম, কেক বাটার,কাঁচা ডিম দিয়ে তৈরি খাবার

  12. অল্প রান্না করা মাংস বা যে কোন খাবার

  13. বারবিকিউ,স্পাইসি জাটীয় খাবার,অতিরিক্ত তেল ও মসলা জাতিয় খাবার।

  14. ডাক্তার বা এক্সপার্ট এর পরামর্শ ছাড়া বা অপ্রয়োজনীয় ঔষুধ ইত্যাদি প্রেগন্যন্সি তে এভয়েড করা একান্ত আবশ্যক। নাহয় গর্ভস্থ ভ্রূনের অনেক বড় ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিবে।
    একজন গর্ভবতী মা-ই পারেন, সুস্থ-সবল শিশুর জন্ম দিতে। আশাকরি গর্ভবতী মায়েরা খাবারের ব্যাপারে সচেতন থাকবেন,বুঝে-শুনে অথবা পরামর্শ নিয়ে খাদ্য তালিকায় খাবার সংযুক্ত করবেন।
    ধন্যবাদ
    নিউট্রিশনিস্ট সাদিয়া স্মৃতি
    চেম্বার এড্রেস এবং সময় চেম্বার-1 মেডিনোভা মেডিকেল সার্ভিসেস। রবিবার এবং বুধবার ( সকাল ১০.৩০-১.৩০) ৬/৯, আউটার সার্কুলার রোড, মালিবাগ মোড়, ঢাকা। এপয়েন্টমেন্ট ও সিরিয়াল - 01558998823 ( সকাল ১০ টা হতে রাত ৯টা পর্যন্ত সিরিয়াল নেয়া হয়, প্রত্যেক চেম্বারের জন্য)
    চেম্বার: 2 ডক্টর সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। রোগী দেখবার সময়- বিকাল ৫.৩০টা- রাত ৮টা ( প্রতি সোমবার)
    For Appointment - 01558998823
  1. royalbangla.com এ আপনার লেখা বা মতামত বা পরামর্শ পাঠাতে পারেন এই এ‌্যড্রেসে royal_bangla@yahoo.com
পরবর্তী পোস্ট

খাবারের পুষ্টিগুণ নিশ্চিত করতে কেমন রান্না করা উচিত ?



মিসড গর্ভপাত (missed abortion / missed miscarraige)

ডাঃ সরওয়াত আফরিনা আক্তার (রুমা) ,Consultant Sonologist
যখন একটি এম্ব্রাইও বা ফিটাস মার্তৃগর্ভে মৃত অবস্থায় থাকে কিন্তু আমাদের শরীর তা বুঝতে পারে না বা জরায়ু ভেতর থেকে তা বের করে দেয়নি, তাকে আমরা মিসড গর্ভপাত (missed abortion) বলি।.......
বিস্তারিত

দাঁত তুললে কি চোখের ক্ষতি হয় ???

ডা: এস.এম.ছাদিক,বি ডি এস (ডি ইউ),এম পি এইচ (অন কোর্স)
পালপাইটিস (Pulpitis) নামক দাঁতের এই রোগটিই মূলত ভীতির কারণ হয়ে দাঁড়ায় রোগীদের নিকট। কেননা ব্যথাটি তখন অতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে যে পাশের দাঁতে ব্যথা সে পাশে চোখে,ঘাড়ে,মাথায় এবং কানের দিকে।.....
বিস্তারিত

অস্টিওপোরেসিস

পুষ্টিবিদ মোঃ ইকবাল হোসেন।বিএসসি (সম্মান), এমএসসি (প্রথম শ্রেণী) (ফলিত পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি)
মানুষে হাড়ের মুল উপাদান হচ্ছে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস এবং ভিটামিন -ডি। কোন কারনে যদি শরীরে ক্যালশিয়াম এবং ভিটামিন ডি এর অভাব হয় তাহলে এই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে।.......
বিস্তারিত

ক্যান্সার ম্যানেজমেন্ট: ক্যান্সার রোগীদের জন্য জরুরি টিপস

ডাঃ লায়লা শিরিন
আজকের সময়ের আতংকের নাম ক্যান্সার। সবচেয়ে বেশি আলোচনা হয় ক্যান্সার ম্যানেজমেন্ট ঠিক হলো কিনা এটি নিয়ে।......
বিস্তারিত